নিহত সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগির পুত্ররা শুক্রবার বলেছেন, তারা তাদের বাবার হত্যাকারীদের ‘ক্ষমা’ ঘোষণা দিয়েছেন। খবর এএফপি’র।

ওয়াশিংটন পোস্ট-এর কলামিস্টের পুত্র সালাহ খাসোগি এক টুইটার বার্তায় বলেন, ‘আমরা শহীদ জামাল খাসোগির পুত্ররা ঘোষণা করছি যে, আমাদের বাবাকে যারা হত্যা করেছে আমরা তাদেরকে ক্ষমা করে দিয়েছি।’

সৌদি আরবে বসবাসরত সালাহ’র এই ক্ষমা ঘোষণার বিস্তারিত আইনগত দিক সম্পর্কে তাৎক্ষণিকভাবে পরিস্কার ধারণা পাওয়া যায়নি।

২০১৮ সালের ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলে সৌদি আরবের কনস্যুলেটে খাসোগিকে হত্যা করে তার দেহ টুকরো টুকরো করে ফেলা হয়। তিনি সৌদি রাজ পরিবারের কট্টর সমালোচক ছিলেন। এ নির্মম হত্যার ঘটনায় তখন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সমালোচনার ঝড় উঠে।

আঙ্কারা জানায়, এ হত্যা মিশনে রিয়াদ থেকে পাঠানো ১৫ এজেন্ট জড়িত ছিল। তার দেহাবশেষ খুঁজে পাওয়া যায়নি।

গত ডিসেম্বরে সরকারি প্রসিকিউটররা জানান, এ মামলায় অভিযুক্ত ১১ ব্যক্তির মধ্যে পাঁচজনকে মৃত্যুদন্ড, তিনজনকে মোট ২৪ বছর কারাদন্ড এবং অন্যদের খালাস দেয়া হয়।

এরআগে সালাহ জানিয়েছিলেন, বিচার প্রক্রিয়ায় তার ‘দৃঢ় আস্থা’ রয়েছে। এ সময় বিরোধীদের সমালোচনা করে তিনি বলেন, তারা এই মামলা থেকে ফায়দা লুটতে চাচ্ছে।

গত এপ্রিলে ওয়াশিংটন পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়, সালাহসহ খাসোগির সন্তানরা মাল্টিমিলিয়ন ডলার মূল্যের বাড়ি পেয়েছে এবং কর্তৃপক্ষ প্রতি মাসে তাদেরকে হাজার হাজার ডলার প্রদান করছে।

তবে, সালাহ এই খবর প্রত্যাখান করে সৌদি সরকারের সঙ্গে একটি তাদের আর্থিক নিষ্পত্তি নিয়ে আলোচনা করার কথা অস্বীকার করেন।

সিআইএ এবং জাতিসংঘের একজন বিশেষ দূত উভয় এ হত্যায় সৌদি আরবের কার্যত: শাসক যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানের সরাসরি জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছে। তবে, সৌদি আরব এমন অভিযোগ প্রত্যাখান করেছে।