ব্রেকিং নিউজ

রাত ১১:১২ ঢাকা, শুক্রবার  ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

খালেদা জিয়ার খাবারও বন্ধ করে দেব

Like & Share করে অন্যকে জানার সুযোগ দিতে পারেন। দ্রুত সংবাদ পেতে sheershamedia.com এর Page এ Like দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকতে পারেন।

 

খালেদা জিয়ার বাসায় খাবার সরবরাহ করতে দেওয়া হবে না বলে ঘোষণা দিয়েছেন নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান। তিনি বলেছেন, তাঁর ‘শ্রমিক–কর্মচারীরা’ খাবার নিয়ে খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে কাউকে ঢুকতে দেবে না। খালেদা জিয়াকে তাঁরা খেতে দেবেন না।
শনিবার বিকেলে বাগেরহাটের রামপালে বাংলাদেশ-ভারত নৌ প্রটোকলভুক্ত মংলা-কুমারখালী-ঘষিয়াখালী চ্যানেলের খননে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘চায়না হারবার এল ইঞ্জিনিয়ারিং’–এর কাজের উদ্বোধন করতে আসেন নৌমন্ত্রী। সেখানে খেয়াঘাটে উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশে নৌপরিবহনমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
শাজাহান খান বলেন, ‘দেশ বাঁচাতে, মানুষকে বাঁচাতে আমরা এই পদক্ষেপ নিয়েছি। শুধু তা–ই না, তাঁর খাবারও আমরা বন্ধ করে দেব। খাবার নিয়ে সেখানে কেউ ঢুকতে পারবে না। আমার শ্রমিক-কর্মচারীরা তাদের হাতের টিফিন ক্যারিয়ার ছিনিয়ে নেবে। খালেদা জিয়াকে খেতে দেব না। আমরা সমস্ত পোড়া গাড়ি নিয়ে তাঁকে ঘেরাও করব। খুব শিগগিরই আপনারা এই প্রোগ্রামটা দেখবেন।’
শাহজাহান খান বলেন, ‘একসময় দেখেছি, সরকারের বিরুদ্ধে বিরোধী দল আন্দোলন করে। এখন দেখছি, তাঁরা জনগণের বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে। তা না হলে পেট্রলবোমা মেরে তারা মানুষ হত্যা করছে কেন? এটা কোনো আন্দোলন নয়, সন্ত্রাসী কার্যক্রম।’
এর আগে দুপুরে মাদারীপুরে চিত্রশিল্পী কাজী আনোয়ার হোসেন সড়ক উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান দাবি করেন, খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ের বিদ্যুৎ, ফোন, গ্যাস ও ইন্টারনেটের লাইন সরকারের পক্ষ থেকে বিচ্ছিন্ন করা হয়নি। তিনি বলেন, ‘আমাদের শ্রমিক ও কর্মচারীরা বিদ্যুৎ বিভাগে কর্মরত, পানি উন্নয়ন বোর্ড, টেলিফোন-গ্যাসেও কর্মরত রয়েছেন। প্রথমে খালেদা জিয়াকে অনুরোধ করা হয়েছে, কিন্তু তিনি অনুরোধ শোনেননি। কথা না শোনার কারণে বিক্ষুব্ধ শ্রমিক ও কর্মচারীরা এসব লাইন বিচ্ছিন্ন করে দিতে পারে। এর দায়-দায়িত্ব সরকারের নয়।’ তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার ডাকা অবরোধে যাঁরা নিহত ও আহত হয়েছেন, তাঁদের ব্যথা তার অনুভব করা উচিত। বেগম জিয়ার এক ছেলের মৃত্যুতে তিনি আহত হয়েছেন, উনি কেঁদেছেন আর আজকে শত শত সন্তান নিহত হচ্ছে, খুন করছেন, তাঁদের পরিবারের দিকে আপনাকে তাকাতে হবে। যদি না পারেন এর দায়-দায়িত্ব আপনাকে নিতে হবে।’

এ সময় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. মোজাম্মেল হক খান, মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক জি এস এম জাফরউল্লাহ, পুলিশ সুপার খোন্দকার ফরিদুল ইসলাম, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান পাভেলুর রহমান শফিক খান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিবুল আহসান, সড়ক ও জনপদ বিভাগের কর্মকর্তারা। এর আগে মন্ত্রী রাজৈর উপজেলার টেকেরহাটে ডিজিটাল টেলিফোন উদ্বোধন করেন।
উল্লেখ্য, শুক্রবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এক জনসভায় দেওয়া ভাষণে খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ের বিদ্যুৎ ও পানির লাইন কেটে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান।