Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৭:২৫ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

খালেদা জিয়া ও মাহবুব উল আলম হানিফ
খালেদা জিয়া ও মাহবুব উল আলম হানিফ

খালেদার রামপাল বিরোধিতা ‘কমেডি’ ছাড়া আর কী’ হতে পারে!

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেছেন, বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার রামপাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের বিরোধিতা ‘কমেডি’ ছাড়া আর কী’ হতে পারে! তিনি শুধু মানুষ নয়, গাছ-পালা, পশু-পাখি হত্যা করে ইতিমধ্যে পরিবেশ বিনষ্টকারী নেত্রী হিসেবে বিবেচিত হয়েছেন। অথচ এখন পরিবেশ রক্ষায় রামপাল বাতিলের দাবি জানান।

বুধবার বিকালে খালেদা জিয়ার সংবাদ সম্মেলনের পর দলের প্রতিক্রিয়া জানাতে ধানমণ্ডির আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

হানিফ বলেন, তিনি (খালেদা জিয়া) সকল প্রকার কৌশলে ব্যর্থ হয়ে বর্তমানে রামপাল-সুন্দরবন রক্ষার আন্দোলনে নামতে চাচ্ছেন। ভাবছেন এতে করে তারা জনগণের সুদৃষ্টি পাবেন। তার এই চিন্তা সবার মতো আমার কাছেও হাস্যকর মনে হয়েছে।

খালেদা জিয়ার উদ্দেশে তিনি বলেন, ডুবন্ত মানুষের মতো খড়কুটোতে ভর করে বেঁচে থাকা যায় না। বেগম খালেদা জিয়া সেরকমই করছেন। কিন্তু মৃতপ্রায় রাজনীতি নিয়ে আর বেঁচে থাকা যাবে না।

আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, রাষ্ট্র এবং রাষ্ট্রের মানুষের ক্ষতি হবে এমন কাজ আওয়ামী লীগ সরকার করতে পারে না, করবেও না। ইতিমধ্যে আমাদের বিদ্যুৎ ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে তথ্য উপাত্ত দিয়েছে। কিছুদিনের মধ্যেই আবারও আমরা সকল প্রকার তথ্য নিয়ে হাজির হবো।

খালেদা জিয়ার ভারতবিদ্বেষী মনোভাব বিষয়ে তিনি বলেন, তিনি তো আইএসআই’র সৃষ্টি। তাদের কথামতোই দল পরিচালনা করেন। তিনি ভারতের বিরুদ্ধে অর্থহীন বক্তব্য দেবেন, এটা স্বাভাবিক। সবচেয়ে হাস্যকর হলো, সারাবছর ভারতের বিরুদ্ধে কথা বলে আবার সময়ে অসময়ে ভারতের অনুকম্পাও প্রার্থনা করেন। পদলেহন করেন। তাই আমার বক্তব্য হচ্ছে, পাকিস্তানের চিন্তা বাস্তবায়নকারী একটি দল কী বললো, তা নিয়ে মাথা ঘামানোর সময় আমাদের হাতে নেই।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের আরেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ড. আবদুর রাজ্জাক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, উপ দফতর সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাসপ্রমুখ।