Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:৩৬ ঢাকা, শনিবার  ১৭ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

খালেদা জিয়া
বেগম খালেদা জিয়া ও ড. হাছান মাহমুদ

“খালেদার বিরুদ্ধে থাকা তথ্য ফাঁসের হুমকি”

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও তার পুত্রদের অপকর্ম লুকানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরিবারের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছেন। তিনি বলেন, বিএনপি নেত্রী তার এ নোংরা খেলা বন্ধ না করলে তার বিরুদ্ধে সরকারের কাছে যে তথ্য রয়েছে তা প্রকাশ করা হবে।

ড. হাছান মাহমুদ আজ বিকেলে রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নগরীরর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মে দিবসের জনসভায় সরকার, সরকারী দল ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরিবারকে নিয়ে করা মন্তব্যের জবাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন।

এ সময় আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সাত্তার ও কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সুজিত রায় নন্দীসহ আওয়ামী লীগের অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বেগম খালেদা জিয়া একজন আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ। কারণ তিনি কালো টাকা সাদা করেছেন।

তিনি বলেন, তিনি যে কালো টাকা সাদা করেছেন সে টাকার উৎস সম্পর্কে কোন তথ্য দান করতে পারেননি।

আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকার সময় তারেক রহমান হাওয়া ভবনে সমান্তরাল সরকার প্রতিষ্ঠা করে দুই লাখ কোটি টাকা লোপাট করেছেন। আর তার দুর্নীতির বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই) তদন্ত করেছে।

তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া ছোট পুত্র দুর্নীতির দায়ে সিঙ্গাপুরের একটি আদালতে সাজাপ্রাপ্ত হয়েছে। তার দুর্নীতির অর্থ দেশেও ফেরত আনা হয়েছে।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকার সময়ে বেগম খালেদা জিয়া, তার দুই পুত্র তারেক ও কোকো এবং পরিবারের সদস্যরা শুধু রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক থেকেই ৯৮০ আশি কোটি ২০ লাখ টাকা তছরুপ করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টাকে নিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার করা মন্তব্যের জবাবে ড. হাছান বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে আয় বহির্ভূতভাবে কারো একাউন্টে পাঁচ হাজার ডলার জমা হলে তার বিরুদ্ধে তদন্ত হয় ও মামলা হয় এবং সাজা হয়।

তিনি বলেন, আর বেগম খালেদা জিয়ার অভিযোগ সত্য হলে সজীব ওয়াজেদ জয়ের বিরুদ্ধে তদন্ত হতো এবং তদন্তে দোষী প্রমাণিত হলে মামলা হতো। আর এগুলো কোন কিছু না হওয়ার মাধ্যমে প্রমাণ হয় বেগম খালেদা জিয়া নির্লজ্জ মিথ্যাচার করেছেন।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বেগম খালেদা জিয়া গত জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে ও তার নিজের ও পুত্রদের কুকর্ম আড়াল ও পেট্রোল বোমা দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করে ক্ষমতা দখলে ব্যর্থ হয়ে সৃষ্ট হতাশা থেকে রাজনীতির নোংরা খেলায় মেতে উঠেছেন।

তিনি বলেন, বেগম জিয়া তার এ নোংরা খেলা বন্ধ না করলে সরকারের কাছে তার বিরুদ্ধে থাকা তথ্য প্রকাশ করে সমুচিত জবাব দেয়া হবে।