Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৩:৫৯ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ১৫ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

খাবার
অনেকে মনে করেন, কিছু খাবার তাঁদের জন্য সৌভাগ্য বয়ে আনতে পারে।

খাবারেও ভাগ্য খোলে

নতুন বছর এসে গেছে। অনেকে নতুন বছর শুরু করেছেন নতুন খাবার খেয়ে। অনেকে মনে করেন, কিছু খাবার তাঁদের জন্য সৌভাগ্য বয়ে আনতে পারে। বিভিন্ন দেশে নতুন বছর শুরুর সময় এ ধরনের কিছু খাবার খাওয়া হয়। ঐতিহ্য হিসেবে খাওয়া হয়—এ রকম সাত খাবার সম্পর্কে জেনে নিন:

আঙুর
১. আঙুর
স্পেন ও পর্তুগালে নতুন বছর উদ্‌যাপনের সময় ১২টি আঙুর খাওয়া হয়। ধারণা করা হয়, এ প্রথার মাধ্যমে নতুন বছর আরও মিষ্টি হবে। আসবে সৌভাগ্য। ১২টি আঙুর মানে বছরের ১২টি মাস। তাই প্রতিটি আঙুর খাবার সময় আবার স্বাদের দিকেও খেয়াল রাখা হয়। যে আঙুর টক হবে, সে মাস ভালো যাবে না!

ডালিম

২. ডালিম 
নতুন বছরের পালাবদলের সময় গ্রিসে বাড়ির দরজার সমানে একটি ডালিম মেঝেতে ফাটানো হয়। এতে ডালিমের বীজ ছড়িয়ে পড়ে। একে সৌভাগ্যের প্রতীক বলে মনে করা হয়। ডালিম যত ছড়াবে, ভাগ্য তত সুপ্রসন্ন!

মাছ

৩. মাছ
মাছের আঁশের রং রুপালি। কয়েকটি দেশে বছরের শুরুতে মাছের আঁশ মানিব্যাগে রাখা হয়। সারা বছর ব্যাগে যেন টাকা থাকে, সে আশায় বছরের শুরুতেই আঁশ রাখা। এ ছাড়া রুপালি আঁশের মাছ খাওয়া হয়। মাছের সামনের দিকে এগোনোর বিষয়টিকে সম্ভাবনা ও সমৃদ্ধি হিসেবে দেখা হয়। তবে চিংড়ি বা কাঁকড়া এড়িয়ে চলা হয়।
সবুজ সবজি

৪. সবুজ সবজি
অনেক দেশে নতুন বছরের শুরুতেই খাওয়া হয় সবুজ সবজি। কারণ, এসব সবজি খেলে সারা বছর হাতে নগদ অর্থ থাকবে বলে মনে করেন অনেকে। পালং, বাঁধাকপি যে নগদ অর্থের প্রতীক। যত সবুজ সবজি খাওয়া যাবে, নতুন বছরে তত নগদ অর্থ হাতে আসবে।

গোল কেক

৫. গোল কেক
নতুন বছরে সৌভাগ্যের আশায় গোলাকার কুকি ও কেকের মতো খাবার খাওয়া হয় অনেক দেশে। নতুন বছরের আগের রাতে বা সকালের নাশতায় গোল খাবার খেলে সারা বছর হাতে নগদ অর্থ থাকব। এ ছাড়া নতুন বছরে কেকের মধ্যে কয়েন বা পয়সা বসিয়ে অনেকে কেক খান। ওই পয়সা যার হাতে যাবে, সারা বছর তার কপাল ভালো যাবে।

৬. দই
ভারতের অনেক পরিবারে নতুন বছর উদ্‌যাপনের সময় দই খাওয়া হয়। নতুন বছর উদ্‌যাপনে মিষ্টি দই ভারতীয় ঐতিহ্যের মধ্যে পড়ে। দই খেলে সারা বছর শক্তিসামর্থ্য বজায় থাকবে আর সেই সঙ্গে যুক্ত হবে সৌভাগ্য।
নুডলস

৭. নুডলস
নতুন বছরের শুরুতে জাপানিরা লম্বা নুডলস খেতে পছন্দ করেন। লম্বা, অর্থাৎ দীর্ঘ জীবনের প্রতীক বলে তাঁরা মনে করেন। এশিয়ার অনেক দেশে নুডলস খেলে দীর্ঘায়ু হওয়া যায়—এমন বিশ্বাস রয়েছে। তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া।