ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১:২২ ঢাকা, সোমবার  ২১শে মে ২০১৮ ইং

জাফর ইকবাল
বিশিষ্ট লেখক ও শিক্ষাবিদ ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল, ফাইল ফটো

“ক্ষোভ নেই, হামলাকারীদের ক্ষমা করেছি”

বিশিষ্ট লেখক ও শিক্ষাবিদ ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল আজ সিলেটে ফিরে বলেছেন, ‘হামলাকারীদের আমি ক্ষমা করে দিয়েছি। তাদের প্রতি আমার কোন ক্ষোভ নেই।’

তিনি বুধবার দুপুরে নভোএয়ার-এর একটি ফ্লাইটে সিলেটে এমএজি ওসমানী বিমানবন্দরে পৌঁছে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) দশদিন চিকিৎসা শেষে বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় তাকে ছাড়পত্র দেয়া হয়। সেখান থেকে তিনি সরাসরি হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে চলে যান । সেখান থেকে বিমানযোগে তিনি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান। এসময় তার সহধর্মিনী অধ্যাপক ইয়াসমিন হক সঙ্গে ছিলেন।

জাফর ইকবাল বলেন, আর কোন ছেলে যেনো এ পথে না এগোয় এ ব্যবস্থা আমাদেরকেই করতে হবে।

তিনি বলেন, আমি এখন সুস্থ আছি। আর এ কথা জানানোর জন্য আমার মন ব্যাকুল হয়েছিলো। আমি ছঁটফট করছিলাম। তাই দ্রুত সিলেটে ফিরে এসেছি।

তিনি বলেন, যারা আমার জন্য রাস্তায় আন্দোলন করেছেন, আমার জন্য দোয়া করেছেন, তাদের সবার প্রতি আমার শুভকামনা রইলো।

ড. জাফর ইকবাল শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, আমি কখনো ভয় পাই না। এখনো পাচ্ছি না। আমি মুক্তমঞ্চে দাঁড়িয়ে আবারও কথা বলব। আমাদের দেশটা অনেক সুন্দর। তোমরা দেশটাকে ভালোবাসো। দেখবে দেশও তোমাদের ভালোবাসবে।

তিনি বলেন, তাদের ওপর আমার কোনো রাগ নাই। আমি তাদের জন্য এক ধরনের দুঃখ অনুভব করি। এত সুন্দর পৃথিবী। সেখানে এত সুন্দর সুন্দর কাজ করা সম্ভব। তারা সেগুলো না করে এই ধরনের একটা কাজকে জীবনের উদ্দেশ্য হিসেবে নিয়েছে, সেজন্য তাদের প্রতি আমি দুঃখ অনুভব করি।

তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশকে এমনভাবে গড়ে তুলতে হবে যেন তরুণরা ভুল পথে না যায়, তারা যেন সাধারণ মানুষের মত সুন্দর জীবন যাপন করতে পারে।’

ওসমানী বিমানবন্দরে জাফর ইকবালকে স্বাগত জানান শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমদসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তারা।

পরে তাকে কঠোর পুলিশ প্রহরায় বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে মুক্তমঞ্চে মুহম্মদ জাফর ইকবালকে বরণ করার প্রস্তুতি নিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

এদিকে সিলেটে পৌঁছার পর জাফর ইকবালের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, তিনি গত ৩ মার্চ শাবিপ্রবি ক্যাম্পাসে এক যুবকের ছুরিকাঘাতে আহত হন।

ঘটনার পরপরই হামলাকারি যুবক ফয়জুল হাসানকে আটক করে শিক্ষার্থীরা। পরে তার মামা, বাবা, মা ও বড় ভাইকে আটক করে পুলিশ। -বাসস