Press "Enter" to skip to content

“ক্ষমতায় গেলে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টানদের জন্য মন্ত্রণালয়”

ঠাকুরগাঁও-১ আসনের বিএনপির প্রার্থী ও দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ক্ষমতায় গেলে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের সমস্যা সমাধানে আলাদা মন্ত্রণালয় করা হবে।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় তৃতীয় দিনে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় গণসংযোগকালে তিনি এ আশ্বাস দেন।

ফখরুল বলেন, ‘সন্ত্রাস,ভয়ভীতি ও ত্রাসের মাধ্যমে এই সরকার মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিচ্ছে। প্রতিহিংসার রাজনীতি এ দেশের অপার সম্ভাবনা ম্লান করে দিচ্ছে। বিএনপি সরকার গঠন করলে শান্তিময় জীবন প্রতিষ্ঠা করা হবে। যত দিন শিক্ষিত বেকারদের চাকরি হবে না, ততদিন তাদের ভাতা দেয়া হবে।

খালেদা জিয়ার মুক্তি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, দেশের বিচারব্যবস্থার বিশ্বাসযোগ্যতার প্রতি জনগণের আস্থা তলানিতে পৌঁছেছে। আওয়ামী লীগ একক ক্ষমতা দখলে রাখতে স্বৈরশাসন কায়েম করেছে।

ফখরুল বলেন, নির্বাচনে সহিংসতা বাড়ছে। সুষ্ঠু ও শান্তি পূর্ণ নির্বাচন আয়োজনে নির্বাচন কমিশনারের ন্যূনতম আগ্রহ নেই। সহিংসতায় সরকারের লোকজন জড়িত। নির্বাচন বানচাল করে এককভাবে ক্ষমতায় আওয়ামী লীগ থাকতে চায়।

সকাল থেকে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা, বরুনাগাঁও, চেরাডাঙ্গী,বটতলী, বদ্বেশরী, চুয়ামনিসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন মির্জা ফখরুল।

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, জেলা বিএনপি সহসভাপতি আল মামুন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সুলতানুল ফেরদৌস চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পয়গাম আলী, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হামিদ প্রমুখ।

Mission News Theme by Compete Themes.