Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:১১ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

‘ক্রিকেট খেলার টিকেট নিয়ে দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া-সংঘর্ষ-ভাঙচুর’

সংঘর্ষের কারণে প্রায় ৩ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর মিরপুরে আবারও শুরু হয় টিকিট বিক্রি। কিন্তু মাত্র এক ঘণ্টাতেই ফুরিয়ে যায় টিকিট। ক্ষুব্ধ টিকিট প্রত্যাশীদের সঙ্গে আবারও সংঘর্ষ বাধে পুলিশের। এভাবেই কেটে যায় আজকের দিনটি।

শনিবার সকালে ব্যাংকের শাখার সামনে ভিড় জমান হাজারো টিকিট প্রত্যাশী। বেলা ১২ টা থেকে টিকিট বিক্রি হওয়ার কথা ছিল। এর মধ্যেই ‘টিকেট নাই’এবং ‘জাল টিকেট বিক্রি হচ্ছে’ গুজব ছড়ালে বেলা সোয়া ১১ টার দিকে লাইনে দাঁড়ানো টিকেট প্রত্যাশীদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দেয়। তাদের সঙ্গে পুলিশের কয়েক দফা ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার পর সংঘর্ষ-ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটে যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, টিকেট প্রত্যাশীরা টিকেট বিক্রিতে নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠলে পুলিশ কাঁদুনে গ্যাস ও রাবার বুলেট ‍ছুড়তে শুরু করে। এর পরপরই আসে টিকিট বিক্রি বন্ধের ঘোষণা।

পরে  প্রায় ৩ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর বিকেল ৪টার দিকে আবার টিকেট বিক্রি শুরু হয়। মিরপুর থানার ওসি ভূইয়া মাহবুব হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, টিকিট বিক্রি শুরুর আগেই এক পর্যায়ে ব্যাংকে ইট নিক্ষেপ এবং সড়কে গাড়ি ভাঙচুর শুরু হলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে।

বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যকার ফাইনাল ম্যাচের টিকিট সংগ্রহ করতে রীতিমতো যুদ্ধে নামতে হয়েছে টাইগার ভক্তদের। শনিবার সকালে মিরপুর শেরে-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়াম সংলগ্ন ইউনাইটেড কমার্শিয়াল (ইউসিবিএল) ব্যাংকের শাখার সামনে ভিড় জমিয়েছে হাজারো ক্রিকেট প্রেমী ক্রেতা। তাদের সঙ্গে পুলিশের কয়েক দফা ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার পর সংঘর্ষ-ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটেছে। অন্যদিকে জলকামান ও রায়োটকার বসিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছে পুলিশ।

লাইনে থাকা বেশ কয়েকজন অভিযোগ করেন, সেখানে লাইনে থাকা মানুষদের ধীরে টিকিট দেয়া হলেও অনেকেই প্রভাবখাটিয়ে পরিচিত ব্যাংকারদের মাধ্যমে টিকিট সংগ্রহ করেছে।