শীর্ষ মিডিয়া

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৩:১৯ ঢাকা, সোমবার  ১৭ই ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

ছবিঃ নির্যাতিতা শিশু মাহফুজা আক্তার হ্যাপি এবং ক্রিকেটার শাহাদাত হোসেন ও তার স্ত্রী নিত্য

“ক্রিকেটার শাহাদাত ও স্ত্রী নিত্য গৃহকর্মী নির্যাতনের অভিযোগে পলাতক”

জাতীয় ক্রিকেট দলের পেস বোলার শাহাদাত হোসেন ও স্ত্রী নিত্যর বিরুদ্ধে গৃহকর্মী নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।

রবিবার রাতে মিরপুর মডেল থানায় এই অভিযোগে একটি মামলা হবার পর থেকে তাকে আর পাওয়া যাচ্ছে না।

মিরপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ভূঁইয়া মাহবুব হোসেন গনমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ” ধরতে অভিযান চলছে। শাহাদাত ও তাঁর স্ত্রীকে বাসায় পাওয়া যায়নি আমরা তালা মারা দেখতে পেয়েছি।”

গণমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে রবিবার সন্ধেবেলা একটি মেয়ে শিশুকে রাস্তা থেকে উদ্ধার করা হয়। তার শরীরে নির্যাতনের চিহ্ন ছিল।

সে ক্রিকেটার শাহাদাতের বাসায় গৃহকর্মী ছিল এবং শাহাদাত ও স্তার ত্রী নিত্য তাকে নির্যাতন করেছে বলে সে অভিযোগ করে।

পরে মেয়েটিকে থানায় নিয়ে গিয়ে শাহাদাতের বিরুদ্ধে মামলা করেন খন্দকার মোজাম্মেল হোসেন নামে একজন সাংবাদিক।

আর নির্যাতনের শিকার মেয়েটিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

সেন্টারের সমন্বয়ক ড: বিলকিস বেগম গনমাধ্যমকে জানিয়েছেন মেয়েটির পিঠে, হাতে পায়ে এবং মুখে সব জায়গায় আঘাতের চিহ্ন তারা পেয়েছেন।

”মেয়েটির একটি পা ভেঙে গেছে এবং পিঠে বেতের আঘাতের চিহ্ন পেয়েছি আমরা। তার গায়ে পুরনো মারের দাগও রয়েছে। মেয়েটির দুচোখের আঘাত গুরুতর বলে মনে করছি আমরা।”

মেয়েটির নাম মাহফুজা আক্তার হ্যাপি।

তার বয়স এগারো বছর বলে উল্লেখ করছে পুলিশ।

বাংলাদেশে ক্রিকেটারদের ব্যাপক তারকা-খ্যাতি রয়েছে।

ফলে শাহাদাত হোসেন এ ধরণের অভিযোগে জড়িয়ে পড়ায় দেশে এখন ব্যাপক সমালোচনা চলছে।

এ বিষয়ে শাহাদাত হোসেন রোববার একটি প্রভাবশালী গনমাধ্যমকে বলেন, মেয়েটিকে শারীরিক নির্যাতন করা হয়নি। সে পড়ে গিয়ে আঘাত পেয়েছে। গতকাল সকাল থেকে সে নিখোঁজ ছিল। এ কারণে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মিরপুর থানায় তিনি একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।