ব্রেকিং নিউজ

রাত ১:০৯ ঢাকা, শুক্রবার  ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

আবুল মাল আব্দুল মুহিত
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, ফাইল ফটো

কৌশলগত কারণে এখনই মধ্যম আয়ের দেশ ঘোষণা চায় না সরকার

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, কম হারের সুদে বিদেশী ঋণ পেতে বাংলাদেশকে এখনই মধ্যম আয়ের দেশ ঘোষণা করতে চায় না সরকার।
তিনি বলেন, উন্নয়নকাজে অর্থ ও কারিগরি সহায়তা দেয়ার ক্ষেত্রে দাতাদের চড়া সুদের প্রস্তাব গ্রহণ করা হবে না।
বুধবার রাজধানীর শেরে-বাংলা নগর এনইসি সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত এক পর্যালোচনা সভায় অর্থমন্ত্রী এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, ধারাবাহিকভাবে বাংলাদেশের অর্থনীতি উন্নতির দিকে যাচ্ছে। এরই মধ্যে আমরা নিম্নমধ্য আয়ের দেশে প্রবেশ করেছি। তাই বিভিন্ন উন্নয়ন-সহযোগী সংস্থা এখনই সুদের হার বাড়াতে চাইছে। এটি কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না।
মুহিত বলেন, আমরা ২০২১ সালের মধ্যে মধ্য আয়ের দেশে যাব, এটি সত্যি। কিন্তু তাই বলে এখন থেকেই সুদের হার বেশি দিতে হবে, এটা কোনো কথা না।
ইস্তাম্বুল প্রোগ্রাম অব অ্যাকশন (আইপিওএ) এর প্রস্তুতি এবং এলডিসি দেশ থেকে উন্নয়নের নির্দেশকসমূহের অগ্রগতি পর্যালোচনায় এ সভার আয়োজন করা হয়।
অনুষ্ঠানে দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি, জিডিপি প্রবৃদ্ধি, দাতাদের সাহায্য, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাতসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন অর্থমন্ত্রী।
মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হওয়ার বিষয়ে মুহিত বলেন, আমাদের এই মুহূর্তে এলডিসির তালিকা থেকে বের হতে হলে অতিরিক্ত ৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ দরকার। তবে প্রতিবছর এখন আমরা যে ১০ থেকে ১২ বিলিয়ন বিনিয়োগ করছি, এটি যদি ধারাবাহিকভাবে ধরে রাখা যায় তাহলে মধ্যম আয়ের দেশে যেতে কোনো অসুবিধা হবে না।
দেশের স্বাস্থ্য ও শিক্ষা খাতের অগ্রগতির কথাও তুলে ধরেন অর্থমন্ত্রী। তবে বেসরকারি কলেজ জাতীয়করণের বিরোধিতা করে তিনি বলেন, জাতীয়করণ করায় এসব কলেজের শিক্ষাব্যবস্থা ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে।
অনুষ্ঠানে খসড়া প্রতিবেদনের ওপর সংক্ষিপ্ত আলোকপাত করেন অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) অতিরিক্ত সচিব মো. আলকামা সিদ্দিক। সভাপতিত্ব করেন অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. মেজবাহউদ্দিন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।
উল্লেখ্য, আগামী বছর অনুষ্ঠেয় আইপিওএতে বাংলাদেশ গ্লোবাল কো-অর্ডিনেশন ব্যুরোর চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করবে।