ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১২:৩৩ ঢাকা, সোমবার  ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

কোর্ট ফি দিতে “ই-পেমেন্ট” ব্যবস্থা চালু হচ্ছে

কোর্ট ফি প্রদানের ক্ষেত্রে ই-পেমেন্ট সিস্টেম চালুর উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।
আজ মন্ত্রিসভার নিয়মিত সাপ্তাহিক বৈঠকে এ সম্পর্কিত কোর্ট ফি ( সংশোধনী) আইন -২০১৫ খসড়ায় অনুমোদন দেয়া হয়। বিদ্যমান আইনে স্টাম্প ও রশিদমূলে নগদে এই ফি দেয়া হয়।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আজ জাতীয় সংসদে মন্ত্রিসভা কক্ষে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
মন্ত্রিপরিষদ সচিব এম মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ই-পেমেন্ট ব্যবস্থায় সরকারের স্টাম্প ছাপা, সংরক্ষণ ও পরিবহন ব্যয় কমবে। এতে মানুষের দুর্ভোগ এবং জালিয়াতিও হ্রাস পাবে। এ আইন অমান্যের সাজা হবে ৬ মাস কারাদন্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা। বর্তমানে এর পরিমাণ হচ্ছে ৫শ’ টাকা।
বৈঠকে মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) সম্পূরক শুল্ক কর-২০১২ আরো সহজ করতে কোন কোম্পানির ভ্যাট অব্যাহতির জন্য লেন-দেন ২৪ লাখ টাকা থেকে ৩০ লাখে উন্নীত করা হয়েছে- যা চিনি, গুড়, সার, জীবন রক্ষাকারী ওষুধ, ইনসুলিন এবং ক্যান্সার ও কিডনী রোগের ওষুধের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে।
সচিব বলেন, হাইকোর্টের ২০১১ সালের নির্দেশনার আলোকে বিদ্যমান আইন আরো কার্যকর করতে এবং মানুষ যাতে আধুনিক চিকিৎসা প্রযুক্তির সুবিধা লাভ করতে পারে, এ জন্য অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজন (সংশোধনী) আইন-২০১৫ খসড়ায় নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।
বৈঠকে ১৯৬৪ সালে প্রণীত এবং ১৯৭৬, ১৯৭৮ ও ১৯৭৯ সালে সামরিক শাসনামলে কয়েকবার সংশোধিত ক্যাডেট কলেজ (সংশোধন) আইন-২০১৫,এর খসড়ায় নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয় । প্রস্তাবে এসব প্রতিষ্ঠানকে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের আাওতাভুক্ত করার বিধান রয়েছে। এছাড়া এতে মৌলিক কোন পরিবর্তন নেই।