ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৯:৪৪ ঢাকা, বুধবার  ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

আইজিপি এ কে এম শহীদুল হক

কোনো পুলিশের ব্যক্তিগত অপরাধের দায় পুলিশ বাহিনীর নয়: আইজিপি

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজি) একেএম শহিদুল হক বলেছেন, যেসব পুলিশ সদস্য অপরাধ করছে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে, বরখাস্ত করা হচ্ছে, তদন্তের পর অপরাধ প্রমাণিত হলে শাস্তি প্রদান করা হচ্ছে। কোনো পুলিশ সদস্যই আইনের ঊর্ধ্বে নয়। কোনো পুলিশ সদস্য যদি অপরাধ করে থাকে, তবে এটা তার ব্যক্তিগত অপরাধ। এ অপরাধের দায় পুলিশ বাহিনীর নয়, বাহিনীর ওপর অপরাধের দায় বর্তাবে না।

শনিবার দুপুরে ‘হিউম্যান রাইট্স এন্ড পিস ফর বাংলাদেশ (এইচআরপিবি)’-এর উদ্যোগে প্রথমবারেরর মতো সিলেটে প্রবাসীদের অধিকার বিষয়ক ‘প্রবাসীদের অধিকার নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে প্রশাসনের ভূমিকা’ শীর্ষক সেমিনারেরর প্রথম অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন আইজিপি। সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

আইজিপি বলেন, দেশে প্রবাসী হেল্প ডেস্ক গঠন করা হয়েছে। ডেস্কের কার্যক্রম পুলিশ হেডকোয়ার্টার থেকে মনিটরিং করা হচ্ছে। প্রবাসীদের কষ্টার্জিত টাকায় দেশের উন্নয়ন হচ্ছে। এজন্য প্রবাসীরা যেন মিথ্যে মামলায় হয়রানির শিকার না হন সেটা নিশ্চিতে এবং তাদের সকল সমস্যার সমাধানে সরকার আন্তরিক।

তিনি জানান, গত ৬ মাসে প্রবাসী ডেস্কে সরাসরি ২৬৯টি অভিযোগ জমা পড়েছে। এর মধ্যে ১৯৮টি নিষ্পত্তি করা হয়েছে। এছাড়া টেলিফোনের মাধ্যমে প্রায় ৭শটি অভিযোগ জমা পড়েছে। এগুলোও নিষ্পত্তি করা হচ্ছে।

আইজিপি আরো বলেন, সারাবিশ্বে জঙ্গিবাদের প্রসার লাভ করেছে। বাংলাদেশের পুলিশ জনগণের সহায়তায় জঙ্গিবাদ দাবিয়ে রেখেছে। পুলিশ জঙ্গিদের ধরছে, বিস্ফোরক উদ্ধার করছে। বাংলাদেশ নানা সীমাবদ্ধতার মধ্যেও জঙ্গিবাদ দমন করে এগিয়ে যাচ্ছে। জনগণকে আরো বেশি করে সেবা দেয়ার জন্য সারাদেশে কমিউনিটি পুলিশিংয়ের কমিটি গঠন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিটি সেক্টরে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশ অনেক সাফল্য অর্জন করেছে।

সেমিনারের প্রথম অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন ‘হিউম্যান রাইটস এন্ড পিস ফর বাংলাদেশ (এইচআরপিবি)’-এর প্রেসিডেন্ট অ্যাডভোকেট মনজিল মোরশেদ। এতে বক্তব্য রাখেন, সিলেটের জেলা ও দায়রা জজ মনির আহমদ পাটওয়ারী, সিলেট মহানগর দায়রা জজ আকবর হোসেন মৃধা, পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, যুক্তরাজ্যের টাওয়ার হ্যামলেট কাউন্সিলের স্পিকার এমএ মুকিত এমবিই, এইচআরপিবি ইউকে শাখার সহ সভাপতি এলাইছ মিয়া মতিন। মডারেটরের দায়িত্ব পালন করেন এইচআরপিবি-সিলেট শাখার সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল হাই কাইয়ুম। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন এইচআরপিবি যুক্তরাজ্য শাখার সভাপতি মো. রহমত আলী।