Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:২৮ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

কচুক্ষেতে ঘটনাস্থলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা

‘কেউ সামনে আসবি না, আসলে কোপাবো’

‘কেউ সামনে আসবি না, আসলে কোপাবো’ মিলিটারি পুলিশ সদস্য সামিদুলকে কুপিয়ে জখমকারী যুবক গতকাল তাকে ধাওয়াকারীদের উদ্দেশে এমনটাই বলছিল।

রাজধানীর কচুক্ষেতে মিলিটারি পুলিশ সদস্য সামিদুল ইসলামকে কুপিয়ে আহতকারী দুর্বৃত্তকে প্রায় ঘণ্টাখানেক ধাওয়া করে আটক করা হয়েছে।
আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ধাওয়া খেয়ে একপর্যায়ে একটি বাড়ির পাঁচতলায় ওঠে পড়ে হামলাকারী ওই যুবক। পরে গুলির হুমকি পেয়ে সে নিচে নেমে আসে।
আনুমানিক ৩০-৩৫ বছরের ওই যুবকের নাম প্রকাশ করতে রাজি হননি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। তাকে বর্তমানে সেনা গোয়েন্দা সংস্থা ডিজিএফআইয়ের কার্যালয়ে রাখা হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনায় জানা গেছে, সামিদুলকে ছুরিকাঘাতের পর ওই ব্যক্তি উত্তর কাফরুল স্কুল রোডে ঢোকে। ধাওয়া খেয়ে সে প্রথমে আরমান সাহেবের বাসার গলির ২৩৯/২ নম্বর বাড়ির গেটের সামনে দাঁড়ায়।
এ সময় প্রায় দুই ফুট লম্বা ছুরি নাড়াতে নাড়াতে ওই যুবক ধাওয়াকারীদের উদ্দেশে বলতে থাকেন, ‘কেউ সামনে আসবি না, আসলে কোপাবো।’
এরপর ওই যুবক সেখান থেকে বের হয়ে উত্তর কাফরুল উচ্চ বিদ্যালয়ে ঢোকার চেষ্টা করে। তবে বিদ্যালয়টি বন্ধ থাকায় সে সেখানে ঢুকতে পারেনি।
ফের ধাওয়া খেয়ে এক পর্যায়ে সে পাশের গলির ২৩৯/২/খ নম্বর বাড়িতে চলে যায়। ওই বাড়ির প্রধান ফটক ও ভবনের কলাপসিবল গেট খোলা ছিল। এ সুযোগে ওই যুবক দৌড়ে ওই ভবনের পাঁচতলায় ওঠে যান। দরজা বন্ধ থাকায় ছাদে যাওয়ার চেষ্টা করেও পারেনি।
এর মধ্যে কাফরুল থানার পুলিশ, মিলিটারি পুলিশ এবং সামরিক বাহিনীর সাদা পোশাকের কর্মকর্তারা ওই বাড়ি ঘিরে ফেলে। ওই যুবক পাঁচতলায় থাকার সময় বাড়িটির দারোয়ান হারুনুর রশীদ ভবনের কলাপসিবল গেট আটকে দেন।

পরে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ওই যুবককে নিচে নেমে আসতে বলেন। কিন্তু এতে সে সাড়া দিচ্ছিল না। একপর্যায়ে ‘নিচে নেমে না এলে গুলি করা হবে’ বলে হুমকি দেয়া হলে সে নিচে নেমে আসে।

তবে ছাদ থেকে নেমে আসার সময় দোতলা বাসার দরজার সামনে থাকা পাপোশের নিচে রক্তমাখা ছুরিটি লুকিয়ে রেখে আসে ওই দুর্বৃত্ত। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তা উদ্ধার করেন।

এর আগে মঙ্গলবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে রাজধানীর কাফরুল থানার কচুক্ষেত এলাকার একটি চেকপোস্টে মিলিটারি পুলিশ সদস্য সামিদুলকে কুপিয়ে জখম করে ওই দুর্বৃত্ত। সামিদুল ১৩ এমপি’র ল্যান্স কর্পোরাল। তিনি বর্তমানে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি রয়েছেন।