ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৪:৩৫ ঢাকা, বুধবার  ২৩শে মে ২০১৮ ইং

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান

কৃষিঋণ বিতরণে বেশি মনোযোগি হওয়ার পরামর্শ দিলেন গভর্নর

পল্লী এলাকায় আয় উৎসারী কর্মকান্ড প্রসারে ব্যাংকসমূহকে কৃষিঋণ বিতরণে আরো বেশি মনোযোগি হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন গভর্নর ড. আতিউর রহমান।
তিনি বলেন,‘পল্লী এলাকায় আয় উৎসারী কর্মকান্ড প্রসারের মাধ্যমে অধিকতর স্ব-কর্মসংস্থান সৃষ্টি করে জাতীয় অর্থনীতির ভিতকে আরো মজবুত করার ওপর গুরুত্ব দিতে হবে। আর এ ক্ষেত্রে কৃষিঋণ একটি গুরুত্বপূর্ণ উপকরণ।তাই কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের নেওয়া বিভিন্ন উদ্যোগ ও নীতিমালা অনুসরণ করে ঋণ প্রবাহ বাড়াতে ব্যাংকগুলোকে আরো বেশি মনোযোগি হতে হবে।’
সোমবার জয়পুরহাট সার্কিট হাউস মাঠে কৃষি কর্মসংস্থান মেলার উদ্বোধন এবং ঋণ ও সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে সংসদ সদস্য আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন ও বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক বিষ্ণু পদ সাহা প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।
গভর্নর বলেন, বিগত কয়েক বছর কৃষিঋণ বিতরণ উল্লেখযোগ্য পরিমাণ বাড়ার সরাসরি প্রভাব কৃষি উৎপাদনে পড়েছে। ফলশ্রুতিতে কৃষি উৎপাদন উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে এ অর্জনের ক্ষেত্রে দেশের হাজারো কর্মবীর কৃষকদের অক্লান্ত পরিশ্রম বড় অবদান রেখেছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।
তিনি জানান,চলতি ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে কৃষি ও পল্লী খাতে ঋণ বিতরণের সর্বমোট লক্ষ্যমাত্রা ১৬ হাজার ৪০০ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে যা এ যাবৎ কালের মধ্যে সর্বোচ্চ।
আতিউর রহমান বলেন, কৃষকগণের ব্যাংকিং সেবা সহজলোভ্য ও হয়রানীমুক্ত করতে ব্যাংকগুলোকে যথাযথ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে এবং ব্যাংকসমূহ তাদের সেবা প্রদানে আন্তরিকভাবে কাজ করছে। কৃষি ক্ষেত্রে যুগান্তকারী পরিবর্তন আনতে কেন্দ্রিয় ব্যাংক বহুমুখী পদক্ষেপ নিয়েছে বলে তিনি জানান।
তিনি বলেন, অন্তর্ভূক্তিমূলক ও টেকসই প্রবৃদ্ধি নিশ্চিত করতে দেশে অন্তর্ভূক্ত হওয়া ১১১টি ছিটমহলে কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণের জন্য সকল তফসিলী ব্যাংকগুলোকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এ এলাকায় সিএসআর কার্যক্রমের আওতায় প্রায় ২ কোটি ৫০ লাখ টাকার সমপরিমাণ প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান হচ্ছে।
অনুষ্ঠানে গভর্নর কৃষি ঋণ, দুগ্ধ উৎপাদন, মৎস চাষ, পশু পালনসহ বিভিন্ন খাতে ৫৮ লাখ টাকার ঋণের চেক কৃষকদের হাতে তুলে দেন।