ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৪:৪৪ ঢাকা, বুধবার  ২৩শে মে ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

“কূটনীতিকদের আশ্বস্ত করলো সরকার”

ঢাকায় নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের কাছে বিদেশী দুই নাগরিক হত্যার ঘটনার পর উদ্ভূত পরিস্থিতি তুলে ধরেছে সরকার।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী কূটনীতিকদের কাছে সাম্প্রতিক পরিস্থিতির বিভিন্ন বিষয়ে তুলে ধরেন।
মঙ্গলবার বিকাল ৩টায় রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় এ বিফ্রিংয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, উত্তর কোরিয়া, মালয়েশিয়া, ব্রাজিল ও ইরানসহ বেশ কয়েকটি দেশের রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনাররা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।
এ সময় সরকারের পক্ষ থেকে কূটনীতিকদের জানানো হয়, সম্প্রতি ঘটে যাওয়া জাপানের নাগরিক কুনিও হোশি ও ইতালির নাগরিক সিজারি তাভেল্লা হত্যা তদন্তের অগ্রগতি হয়েছে।
ব্রিফিংয়ে দাবি করা হয়, বর্তমানে দেশের নিরাপত্তা পরিস্থিতিও স্বাভাবিক রয়েছে এবং প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। এ বিষয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনো কারণ নেই।
এছাড়া বিদেশী নাগরিকদের নিরাপত্তা দিতে সরকার আন্তরিক বলেও কূটনীতিকদের জানানো হয়।
বৈঠক শেষে ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট গিবসন সাংবাদিকদের বলেন, সরকার নিরাপত্তা প্রশ্নে আমাদেরকে আশ্বস্ত করেছে। দুই বিদেশী নাগরিক হত্যায় সরকার যথাযথ ব্যবস্থা নেবে বলে আমাদেরকে জানিয়েছে।
তবে সরকারের কথায় আপনারা আশ্বস্ত কিনা- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে যান রবার্ট গিবসন।
এদিকে বৈঠক শেষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, বিদেশীদের ওপর হামলা হতে পারে এমন আশংকার কথা আগেই সরকারকে জানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র।
তিনি বলেন, সরকার নিরাপত্তার জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নিয়েছে। একইসঙ্গে হত্যার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে বলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান।
বৈঠকে অন্যদের মধ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক ও র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদসহ সরকারের বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও গোয়েন্দা সংস্থার উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।