ব্রেকিং নিউজ

রাত ৪:৩১ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

কুর্দি যোদ্ধাদের হামলার মুখে ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠী

ইরাক ও সিরিয়াতে ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠী তার ঘাটিগুলোতে বেশ শক্ত হামলার সম্মুখীন হচ্ছে।

কুর্দি নেতৃত্বাধীন জোট সিরিয়ার রাকার উত্তরে হামলা চালাচ্ছে।

তারা ৩০ হাজার যোদ্ধা নিয়ে এগুচ্ছে বলে ধারনা পাওয়া যাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া দু পক্ষই এই জোটকে সহায়তার আশ্বাস দিয়েছে।

অন্যদিকে ইরাকে সরকারের প্রতি অনুগত সেনা, মিলিশিয়া বাহিনী ও বিভিন্ন গোত্রের যোদ্ধারা ফালুজা শহরে হামলা অব্যাহত রেখেছে।

সিরিয়াতে রাকার উত্তরে কুর্দি যোদ্ধাদের হামলার আগে উল্লাস করতে দেখা গেছে।

রাকায় কার্যত রাজধানী স্থাপন করেছে ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠী।

কুর্দি নেতৃত্বাধীন জোট সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেস এর কমান্ডার বলেছেন তারা আই এস এর কবজা থেকে সিরিয়াকে স্বাধীন করেই ছাড়বেন।

ওদিকে ইরাকি সরকারের অনুগত বাহিনীগুলো ফালুজায় ইসলামিক স্টেটের অবস্থানের উপর দ্বিতীয় দিনের মতো হামলা অব্যাহত রেখেছে।

সেখানে র‍্যপিড রেসপন্স ডিভিশনের কমান্ডার থামের মোহাম্মদ ইসমাইল বলছেন সব কিছু পরিকল্পনা অনুযায়ী এগুচ্ছে।

তিনি বলেছেন, তার বাহিনীর দায়িত্ব হচ্ছে দক্ষিণাংশ মুক্ত করা।

কোন ধরনের প্রতিরোধ বা হতাহতের ঘটনা ছাড়াই সহজে তারা এগুচ্ছেন বলে তিনি দাবি করছেন।

আর সিরিয়াতে রাকায় সরাসরি হামলা চালানোর জন্য কুর্দিদের ওপর মার্কিন চাপ থাকা স্বত্বেও শহরের বাইরে উত্তরাংশে হামলা চালাচ্ছে তারা।

এই হামলা চলছে রাকার ৫০ কিলোমিটার দুরে।

কারণ কুর্দিরা তাদের নিয়ন্ত্রণে থাকা এলাকায় আগে হামলা ঠেকাতে চায়।

সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেস এর কমান্ডার রোজদা ফেলাত বলেছেন আগে কুর্দি জনগোষ্ঠীকে রক্ষা করবেন তিনি।

এবং তাতে সফল হলে রাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা সহজ হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

কুর্দি গোষ্ঠী প্রায় ২৬ হাজার স্কয়ার কিলোমিটার এলাকা ইতিমধ্যেই দখলে নিয়ে নিয়েছে।

মার্কিন বাহিনী বলছে তারা কুর্দিদের হামলায় সমর্থন দিচ্ছেন।

অন্যদিকে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেই লাভরভ বলেছেন তারাও এই হামলায় সহযোগিতা করতে প্রস্তুত।

তবে রাকায় অবরুদ্ধ বেসামরিক নাগরিকদের আপাতত ধৈর্য ধরতে হবে বলেই মনে হচ্ছে। বিবিসি