ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৩:২১ ঢাকা, রবিবার  ২৩শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

অর্থমন্ত্রী মুহিত
অর্থমন্ত্রী এএমএ মুহিত, ফাইল ফটো

‘কাস্টমসকে হয়রানিমুক্ত ব্যবসার পরিবেশ তৈরি-ব্যবসাবান্ধব হতে হবে’

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত দেশে চলমান উন্নয়নকে টেকসই করতে ব্যবসাবান্ধব কাস্টমস্ ব্যবস্থা গড়ে তোলার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন।
তিনি বলেন,‘হয়রানিমুক্ত ব্যবসায় পরিবেশ তৈরিতে কাস্টমস্ বিভাগকে অব্যশই ব্যবসাবান্ধব হতে হবে।তাহলে চলমান উন্নয়ন টেকসই করা যাবে।’
শনিবার রাজধানীর আইডিইবি ভবনে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর আয়োজিত ‘বাংলাদেশ করবান্ধব সংস্কৃতির পথে : চোরাচালান ও শুল্ক ফাঁকি রোধে করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
এনবিআর চেয়ারম্যান ড. নজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোজাম্মেল হক খান ও এফবিসিসিআই সভাপতি আব্দুল মাতলুব আহমেদ বক্তব্য রাখেন।
সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান।
অর্থমন্ত্রী বলেন,বিভিন্ন দেশের মধ্যে যাতে শুল্ক বাধাগুলো না থাকে, সে জন্য আমরা বহুদিন ধরে বর্ডার লেস (সীমান্তহীন) ব্যবস্থার কথা বলে আসছি। এটা আমাদের স্বপ্নও ছিল। বিভিন্ন দেশের অভ্যন্তরীণ পরিস্থিতির কারণে যতদিন যাচ্ছে সেই আশা তত দূরে সরে যাচ্ছে।
তিনি বলেন,মুক্তবাজারের কথা চিন্তা করে আমরা শুল্ক অনেক কমিয়ে দিয়েছি।এক সময় রাজস্ব আয়ে শুল্কের অবদান সব থেকে বেশি ছিল।এখন রাজস্ব আয়ে শুল্কের অবদান সব থেকে কম।তবে এখন কিছু শুল্ক রাখা হয়েছে। সন্ত্রাস বা অপরাধ আটকাতেই আমাদের এ ব্যবস্থা (শুল্ক আরোপ) করতে হয়েছে।
অনুষ্ঠানে অর্থ প্রতিমন্ত্রী বলেন, রাজস্ব আদায় করতে গিয়ে ব্যবসায়ীদের স্বাধীনতায় যাতে হাত না পড়ে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। অপ্রয়োজনীয় আইনগুলো সংস্কার করতে হবে। ব্যবসায়ীদের জন্য ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি করা আমাদের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য।
এফবিসিসিআই সভাপতি আব্দুল মাতলুব আহমেদ বলেন, দেশে অনেকভাবে চোরাচালান হচ্ছে। দেশের নাগরিক হিসেবে এটা দেশ ও আমাদের জন্য খুবই লজ্জার বিষয়।
রাজস্ব আদায়ের নামে ব্যবসায়ীরা যেন হয়রানির শিকার না হন, সে বিষয়ে নজর রাখতে কাস্টমস কর্মকর্তাদের প্রতি তিনি আহবান জানান।