ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১:১২ ঢাকা, বুধবার  ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

কামারুজ্জামানের ফাঁসির রায় কার্যকরে ১৫ দিন অপেক্ষা করতে হবে

Like & Share করে অন্যকে জানার সুযোগ দিতে পারেন। দ্রুত সংবাদ পেতে sheershamedia.com এর Page এ Like দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকতে পারেন।

 

কামারুজ্জামানের প্রধান আইনজীবী অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেছেন, রায়ের সত্যায়িত কপি পাওয়ার পর ১৫ দিনের মধ্যে কামারুজ্জামানের ফাঁসির রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ করা হবে। রিভিউ নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত সরকার কোনো অবস্থাতেই তার ফাঁসি কার্যকর করতে পারবে না। রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ আবেদন না করলেও তা কার্যকর করার ক্ষেত্রে ১৫ দিন অপেক্ষা করতে হবে।
সুপ্রীম কোর্ট বার অডিটোরিয়ামে কামারুজ্জামানের রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউয়ের বিষয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। এসময় অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম, শিশির মনির, রফিকুল হক তালুকদার রাজা উপস্থিত ছিলেন।
রায় কার্যকর নিয়ে সরকারপক্ষের আইনজীবীদের বক্তব্যের বিষয়ে খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, আমি ভাবতে পারি না কীভাবে বক্তব্য দেন যে, রিভিউয়ের জন্য অপেক্ষা করতে হবে না, তার মৃত্যু পরোয়ানা পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে, ফাঁসি দেয়া হবে। তিনি বলেন, আপিল বিভাগ তার রায়ে বলেছেন, পূর্ণাঙ্গ রায় পাওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে রিভিউ করা যাবে। তাহলে কি করে রিভিউয়ের ১৫ দিন সময় অতিক্রম হওয়ার আগে ফাঁসি কার্যকর হবে।
খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, রিভিউ নিষ্পত্তি হওয়ার পর সিদ্ধান্ত হবে যে, কিভাবে তা কার্যকর হবে। সেখানে মৃত্যুদণ্ড বহাল থাকবে, নাকি যাবজ্জীবন হবে। কিন্তু কোনো অবস্থাতেই রিভিউ আবেদন চূড়ান্ত নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত আপিলের রায় কার্যকর যাবে না। তিনি বলেন, যেই মুহূর্তে আমরা সার্টিফাইড কপি পাব, সেই মুহূর্ত থেকে আমরা ১৫ দিনের মধ্যে রিভিউ আবেদন দাখিল করব। আমরা ইতিমধ্যেই সার্টিফাইড কপি পাওয়ার জন্য আবেদন করেছি। এখনো পাইনি।
ট্রাইব্যুনালের মৃত্যু পরোয়ানা জারির বিষয়ে কামারুজ্জামানের আইনজীবী বলেন, প্রচলিত আইনানুযায়ী মৃত্যু পরোয়ানা জারি করাটা ঠিক আছে। কিন্তু আইনের বরখেলাপ করে মৃত্যু পরোয়ানা কার্যকর করতে পারবে না। তিনি বলেন, রিভিউ নিষ্পত্তি করার পরও কামারুজ্জামানকে জিজ্ঞাসা করতে হবে যে, তিনি রাষ্ট্রপতির নিকট ক্ষমা চাইবেন কি না। তিনি যদি ক্ষমা চাইতে রাজি হন, তাহলে রাষ্ট্রপতির নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত তা কার্যকর করা যাবে না।