Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১:১১ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

আছাদুজ্জামান মিয়া
ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া, ফাইল ফটো

‘কল্যাণপুরে নিহত ও গুলশানে হামলাকারীরা একই গ্রুপের’

ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার (ডিএমপি) আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, কল্যাণপুরে নিহত জঙ্গি ও গুলশানে হামলাকারীরা একই গ্রুপের সদস্য।

তিনি মঙ্গলবার দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন।

কমিশনার জানান, কল্যাণপুরে নিহতদের পোশাক, কথার ধরন, ব্যবহার্য জিনিসপত্র সবকিছু দেখে মনে হয়েছে তারা সবাই উচ্চ শিক্ষিত ও এলিট শ্রেণীর।

তিনি জানান, সম্প্রতি গুলশানে হামলাকারীদের সঙ্গে কল্যাণপুরে অবস্থানকারী জঙ্গিদের প্রায় সব ক্ষেত্রে মিল রয়েছে।

গুলশান হামলাকারীদের বয়স, তাদের পোষাক, অস্ত্র, গ্রেনেড, ধারালে অস্ত্র এবং ব্যবহার্য জিনিসপত্র দেখে মনে হয়েছে তারা একই গ্রুপের সদস্য।

তিনি বলেন, কল্যাণপুরে জঙ্গি আস্তানা থেকে অনেক আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। এ গুলো যাচাই বাছাই করা হচ্ছে।

আছাদুজ্জামান জানান, দেশের মাটিতে কোন ধরনের জঙ্গি তৎপরতা বরদাস্ত বরা হবেনা। জঙ্গিদের প্রতিরোধের ব্যাপারে জিরো ট্যালারেন্স নীতি গ্রহন করা হেেয়ছে।

আছাদুজ্জামান মিয়া জানান, ভাড়াটেদের তথ্য গোপন ও সংশ্লিষ্ট থানায় পরিচয়পত্র জমা না দেয়ার অভিযোগে কল্যাণপুরের ওই বাড়ির মালিককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ডিএমপি কমিশনার জানান, সোমবার দিবাগত রাত ১টার দিকে রাজধানীর কল্যাণপুর ৫ নম্বর রোডের জাহাজ বিল্ডিং নামের ৫ তলা বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ। পুলিশ ভবনের তৃতীয় তলায় উঠার পর জঙ্গি সদস্যরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গ্রেনেড হামলা ও গুলি চালায়। গোলাগুলির এক পর্য়ায়ে ৯ জঙ্গি সদস্য নিহত হয়। তাৎক্ষনিকভাবে নিহতদের পরিচয় জানা যায়নি।

তিনি জানায়, অভিযান শুরুর কিছুক্ষন পর দু’জঙ্গি সদস্য লাফিয়ে টিনসেট ঘরের চালের ওপর পড়ে একজন পালিয়ে যায়। অপরজনকে আহত অবস্থায় পুলিশ আটক করেছে। আটক যুবকের নাম হাসান।

তিনি জানান, গুলিবিদ্ধ হাসানকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার কাছ থেকে বেশ কিছু তথ্য পাওয়া গেছে। তার দেয়া তথ্য যাচাই বাছাই করে যথা সময়ে নিহতদের নাম পরিচয় জানানো হবে।

কমিশনার জানান, সোয়াট টিমের নেতৃত্বে এই অভিযান পরিচালিত হয়। এতে থানা পুলিশসহ ডিএমপির অন্যান্য সদস্যরা সহায়তা করেছে ।
তিনি জানান, অভিযান শতভাগ সফল হয়েছে। এ অভিযানে একজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

তিনি আরো জানান, কল্যাণপুরে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালানোর সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে লক্ষ্য করে জঙ্গিরা ১১টি গ্রেনেড ছোড়ে।

এ সময় আস্তানা থেকে ৫ কেজি বিস্ফোরক দ্রব্য,ডেটেনেটর ১৯টি, ৭টি ম্যাগজিন, ৪টি পিস্তল, ২২ রাউন্ড গুলি, ১টি তলোয়ার, ৩টি অটোমেটিক ছুড়ি, ১২টি ছোট ছুড়ি এবং বেশ কিছু কালো পোশাক উদ্ধার করা হয়েছে।

আছাদুজ্জামান মিয়া জানান, জাহাজ বিল্ডিং নামের ওই বাড়িটি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সারা রাত ঘিরে রাখার পর ভোর ৫টা ৫১ মিনিটে সোয়াত, র‌্যাব, পুলিশ ও গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) ‘স্টর্ম-টোয়েন্টি সিক্স’ নামের এই অভিযান চালায়।