ব্রেকিং নিউজ

সকাল ১০:২১ ঢাকা, বুধবার  ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

কবির মরদেহে শ্রদ্ধা জানাতে মানুষের ঢল

সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের প্রতি শেষবারের মতো শ্রদ্ধা জানাতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেমেছে হাজারো মানুষের ঢল।

সকাল সোয়া এগারোটার দিকে শহীদ মিনারে নেয়া হয় তার মরদেহ। ১১টা ২৫ মিনিটে কবির মরদেহে শ্রদ্ধা জানান রাষ্ট্রপতি।

এরপর থেকেই শুরু হয় সাধারণ মানুষের শ্রদ্ধা জানানো। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা, পেশাজীবী, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বসহ সর্বস্তরের জনগণ একে একে কবির প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকেও শ্রদ্ধা জানানো হয় কবিকে। সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদসহ অন্যান্য রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ তাকে শ্রদ্ধা জানান।

দুপুর ১টা পর্যন্ত শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানানোর জন্য কবির মরদেহ রাখা হবে।

এর আগে চ্যানেল আইয়ের কার্যালয়ে সকাল ১০টা ৫ মিনিটে তার প্রথম নামাযে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়।

ওখান থেকে বাংলা একাডেমিতে নেয়া হয় সৈয়দ হকের মরদেহ।

শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানানো শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে নেয়া হবে কবিকে। দুপুরে জোহরের নামাজের পর অনুষ্ঠিত হবে কবির আরেকটি জানাযা।

দাফনের জন্য সৈয়দ হকের মরদেহ কুড়িগ্রামে নেয়া হবে। সেখানে নিজের নামে বরাদ্দ করা জমিতে সমাহিত হবেন সব্যসাচী এই লেখক।

মঙ্গলবার বিকালে ইউনাইটেড হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮১ বছর।

সৈয়দ হক স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন। তার স্ত্রী আনোয়ারা সৈয়দ হকও কথাসাহিত্যিক।