Press "Enter" to skip to content

আ. লীগ নেতা শিশুকে পিটালেন-ছড়িয়ে পড়েছে ভিডিও

ময়মনসিংহে মোবাইল ফোন ছিনতাইয়ের অভিযোগে এক শিশুকে পিটিয়ে আহত করেছেন আওয়ামী লীগের এক নেতা। গতকাল বুধবার দুপুরের দিকে শহরের পাটগুদাম বাসস্ট্যান্ডে এ ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে।

নির্যাতনের শিকার সাদ্দাম (১০) শহরের কৃষ্টপুর সরকারি বস্তিতে তাঁর মা পারভীন আকতারের সঙ্গে থাকে।

নির্যাতনকারী সফির উদ্দিন সরু কৃষ্টপুর দক্ষিণপাড়া কমিউনিটি পুলিশের উপদেষ্টা এবং ১৮ নম্বর ওয়ার্ড আ. লীগের সহসভাপতি।

ছেলেটির মা পারভীন আকতার অভিযোগ করেন, গতকাল দুপুরের দিকে নেত্রকোনার শ্যামগঞ্জে খালার বাসায় যাওয়ার পথে পাটগুদাম এলাকায় সফির উদ্দিন সরুসহ কয়েকজন ব্যক্তি তার ছেলেকে কিল ঘুষি ও ট্রাফিক পুলিশের লাঠি দিয়ে পেটান। তাঁরা তার বিরুদ্ধে মোবাইল ফোন ছিনতাইয়ের অভিযোগ করে। খবর পেয়ে কোতোয়ালি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রুকন গিয়ে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান। সন্ধ্যার দিকে থানায় মুচলেকা দিয়ে ছেলেকে ছাড়িয়ে আনেন তিনি।

পারভীন আকতার আরো জানান, তাঁর স্বামী জলিল মারা গেছেন। তিনি কাগজ কুঁড়িয়ে ছেলেকে নিয়ে কোনোমতে চলেন। তবে তাঁর ছেলে চোর নয়। ছেলেকে নির্যাতনের ঘটনার বিচার চান তিনি।

এদিকে, আওয়ামী লীগ নেতা সফির উদ্দিন সরু বলেন, ‘ওই এলাকায় এক নারীর মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেওয়ার অপরাধে সাদ্দামকে আমি চড় থাপ্পড় দিয়েছি। সে পেশাদার ছিনতাইকারী। পরে তাকে  থানায় সোপর্দ করি।’

ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুল ইসলাম বলেন, ‘ছেলেটি পেশাদার ছিনতাইকারী। এর আগেও তিন-চার বার ধরা পড়ে থানায় এসেছে। এটি একটি ছোট ঘটনা। বড় ঘটনা হলে আমরাই আপনাদের জানাব।’

সিলেটে রাজন, খুলনায় রাকিব হত্যার পর সম্প্রতি রাজশাহীর পবায় জাহিদ হাসান ও ইমন আলীকে মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগে নির্যাতনের রেশ না কাটতেই একই কায়দায় এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটলো। গতকাল বুধবার হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলায় বালুর নিচ থেকে  চার শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়। তাদের শ্বাসরোধ করে, পাঁজরের হাড় ভেঙে হত্যা করে বালুচাপা দেওয়া হয়। সূত্রঃ  এনটিভি অনলাইন

ভিডিও লিঙ্ক   https://youtu.be/A9CSC4xcv00

শেয়ার অপশন:
Don`t copy text!