Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৭:২৫ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ১৫ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

১৪ দলের গণ-সমাবেশ

‘ঐক্যের নামে অরাজকতা মোকাবিলা করবে ১৪ দল’

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী এবং ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ‘তথাকথিত জাতীয় ঐক্যের নামে অশুভ শক্তি যদি অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায়, তাহলে ১৪ দল তা মোকাবিলা করবে।’ এছাড়াও আগামী নির্বাচনগুলোতেও ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠে থেকে পরিস্থিতি মোকাবিলা করবে ১৪ দল।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন (জিসিসি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করায় সেখানকার ভোটারদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এই নির্বাচনে উন্নয়ন, শান্তি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে, নৌকার পক্ষে রায় দেওয়ার জন্য গাজীপুরবাসীকে অভিনন্দন জানাচ্ছি।’

আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সভা শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে মোহাম্মদ নাসিম এসব কথা বলেন।

‘তথাকথিত জাতীয় ঐক্যের নামে কিছু অশুভ শক্তি গভীর ষড়যন্ত্র করছে, তারা ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করে অসাংবিধানিক শক্তিকে ক্ষমতায় আনতে চায়’- একথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘ঐক্যের নামে যদি তারা কোন অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায়, তাহলে ১৪ দল তা মোকাবিলা করবে।’

আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আন্দোলন ও নির্বাচনে পরাজিত হয়-এই ধরণের কিছু অশুভ শক্তি আছে। তারা সব সময় মুক্তিযুদ্ধের শক্তিকে ভয় পায়। ১৪ দলের ঐক্যবদ্ধ শক্তিকে ভয় পায়।

তিনি বলেন, মুখচেনা- বর্ণচোরা ব্যক্তিরা ঐক্যের নামে দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করতে চায়। এদের পিছনে কারা আছে আমরা সবাই জানি। এই অশুভ শক্তির বিষয়ে ১৪ দল সতর্ক রয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘স্পষ্ট বলতে চাই সামনের ডিসেম্বর জাতীয় নির্বাচন আসছে। নির্বাচনকে ঘিরে এই অশুভ শক্তি বিএনপি- জামায়াতকে সমর্থন দেওয়ার নামে নৈরাজ্য সৃষ্টি করলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে তাদের মোকাবেলা করা হবে।’

তিনি বলেন, জনগণই হচ্ছে আমাদের শক্তি। জনগণের শক্তির প্রতীক হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই অশুভ শক্তিকে মোকাবেলায় প্রয়োজনে আমরা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের আরও শক্তিকে নিয়ে সমাবেশ করবো।

আগামী নির্বাচনে ১৪দল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে উল্লেখ করে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘নির্বাচন হচ্ছে জনগণের রায় দেওয়ার একমাত্র উপায়। শেখ হাসিনা গত প্রায় ১০ বছরে কোন নির্বাচন বিলম্বিত হতে দেননি। এটা সংবিধান ও গণতন্ত্রের প্রতি শেখ হাসিনার আনুগত্যের প্রমাণ।’

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যেকোন নির্বাচন নিয়ে যেকোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান পর্যবেক্ষণ দিতে পারে। যদি কোন অনিয়ম বা সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকে, তাহলে নির্বাচন কমিশন তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেবে। আসন্ন তিনটি সিটি নির্বাচনেও ১৪ দল ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠে থাকবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

এসময় বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়–য়া, আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন ও খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, বাংলাদেশ তরিকত ফেডারশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী, আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক এডভোকেট আফজাল হোসেনসহ কেন্দ্রীয় ১৪ দলের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।