ব্রেকিং নিউজ

রাত ১২:৫৪ ঢাকা, শনিবার  ১৭ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

এ বাজেট গতানুগতিক: হোসেন জিল্লুর

জাতীয় সংসদে উত্থাপিত ২০১৫-১৫ অর্থ বছরের বাজেটকে পূর্বের বাজেটের ধারাবাহিকতা ও গতানুগতিক বলে মনে করেন অর্থনীতিবিদ হোসেন জিল্লুর রহমান। আজ বৃহস্পতিবার মুঠোফোনে দেওয়া প্রতিক্রিয়ায় তিনি এ কথা বলেন।
হোসেন জিল্লুর রহমান বলেন, ‘বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি গত কয়েক বছর ধরে ৫-৬ এর মধ্যে আটকে আছে। সেখান থেকে বের হয়ে আসার কৌশলপত্র এ বাজেট নয়।’ তিনি মনে করেন, এই বাজেটে বিনিয়োগ বাড়ানোর চ্যালেঞ্জ আছে। বিশেষ করে শিল্পক্ষেত্রে। তবে তা অত্যন্ত দুর্বলভাবে এসেছে।
অর্থনীতিবিদ জিল্লুর বলেন, বাজেটে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল (এসইজেড) কথা বলা হয়েছে। কিন্তু সেটা মূলত বিদেশি বিনিয়োগের কথা মাথায় রেখে। এখানে দেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য কোনো পলিসি ভিশন নাই। তিনি বলেন, এসইজেড-এর সমস্যাটা হচ্ছে এটা নিয়ে জাতীয় আলোচনা নেই। কারণ এটার সঙ্গে ভূমি অধিগ্রহণের মতো স্পর্শকাতর বিষয় জড়িত।
হোসেন জিল্লুর বলেন, প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধির জন্য দক্ষ জনশক্তির প্রয়োজন। এ বিষয়ে বাজেটে কিছু বলা আছে, যা মাথাভারী গতানুগতিক আমলাতান্ত্রিক চিন্তা। কর্মসংস্থানের জন্য বিনিয়োগ বাড়ানো ও দক্ষতার ওপর জোর দেওয়ার কথা বলেন তিনি।

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা হোসেন জিল্লুর বলেন, এনার্জি খাতে অনেক কথা বলা হলেও সেখানে সমন্বিত উদ্যোগের কথা অনুপস্থিত। এই বাজেটে স্বাস্থ্য খাতের জন্য তিনি ভালো কিছু দেখছেন না বলেও মত দিয়েছেন।
বাজেটে ব্যাংকিং খাতের জন্য কমিশন গঠনের প্রস্তাবকে স্বাগত জানান হোসেন জিল্লুর। পরিবহন খাতের জন্য স্ট্র্যাটেজিক ট্রান্সপোর্ট অথরিটি গঠনের প্রস্তাবও তাঁর কাছে ভালো লেগেছে। এ ছাড়া পায়রা বন্দর, মাতারবাড়ি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মতো বড় প্রকল্প নিয়ে জাতীয় আলোচনা থাকার দরকার বলে মনে করেন এই অর্থনীতিবিদ। প্রথম আলো