Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:১৮ ঢাকা, শুক্রবার  ১৬ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

‘এমাজউদ্দীনকে বক্তব্য প্রত্যাহারের আহ্বান জামায়াতের’

২০-দলীয় জোটের পক্ষ থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর ড. এমাজউদ্দীন আহমদকে কোনো মুখপাত্র হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়নি বলে মন্তব্য করেছে জামায়াতে ইসলামী।

মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে জামায়াতের   কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও সাবেক এমপি ডা. সৈয়দ আবদুল্লাহ মোঃ তাহের এ মন্তব্য করেন। একই সঙ্গে ২০ দলীয় জোট নিয়ে তার কোনো কথা বলার অধিকার নেই বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করে জামায়াত।

বিবৃতিতে ডা. তাহের বলেন, জাতির এক ঐতিহাসিক প্রয়োজনে গণতন্ত্র, মানবাধিকার, ধর্মীয় মূল্যবোধ, দেশের স্বাধীনতা এবং সার্বভৌমত্ব রক্ষার অঙ্গীকার নিয়ে ২০০০ সালে চারদলীয় জোট গঠিত হয়েছিল। তারই ধারাবাহিকতায় বর্তমান স্বৈরশাসনের যুগে উক্ত জোট ২০-দলীয় জোটে রূপান্তরিত হয়। ২০-দলীয় জোটের ন্যায্য দাবিকে উপেক্ষা করে দেশে যখন সমস্ত মানুষের ওপর এবং বিশেষভাবে ২০-দলীয় জোটের নেতা-কর্মীদের ওপর ইতিহাসের সবচাইতে জঘন্য দমন-পীড়ন চলছে, দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব এবং জনগণের জাতীয় স্বকীয়তা যখন চরম হুমকির মুখে সে সময়ে ২০-দলের ঐক্যকে আরও সুদৃঢ় করা প্রয়োজন, যখন জাতির প্রতিটি বিবেকবান ও দেশপ্রেমিক নাগরিক হারে হারে উপলব্ধি করছেন- ঠিক এ সময়ে এমাজউদ্দীন সাহেবরা কোন্ উদ্দেশ্যে কার এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য এ ধরনের আপত্তিকর ও বিভ্রান্তিমূলক বক্তব্য দিয়ে চলেছেন তা এক বিরাট প্রশ্ন হয়ে দেখা দিয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা এমাজউদ্দীন সাহেবের সম্মানের দিকে লক্ষ্য রেখে স্পষ্টভাষায় বলতে চাই যে, ২০-দলীয় জোট এমাজউদ্দীনকে জোটের কোন মুখপাত্র হিসেবে নিয়োগ দেয়নি। ২০-দলীয় জোটের পক্ষ থেকে কোন কথা বলার অধিকার তার নেই। তিনি সম্পূর্ণ এখতিয়ার বহির্ভূত ও অযাচিত আচরণ করছেন। এর জন্য অবশ্যই তাকে তার বক্তব্য প্রত্যাহার করতে হবে। অন্যথায় জনগণ ধরে নিতে বাধ্য হবে তিনি বিশেষ গোষ্ঠীর এজেন্ডা বাস্তবায়ন করার জন্য আলো ও অন্ধকারের খেলায় লিপ্ত রয়েছেন। ভবিষ্যতে এ ধরনের অযাচিত, অন্যায্য ও এখতিয়ার বহির্ভূত বক্তব্য প্রদান করা থেকে বিরত থাকার জন্য আমরা অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমেদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি এবং সাথে সাথে এখতিয়ার বহির্ভূত যে বক্তব্য তিনি প্রদান করেছেন তা প্রত্যাহার করে নেয়ার জন্য আমরা আবারও তার প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।