Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৮:২৬ ঢাকা, বুধবার  ২১শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

‘এমপি হান্নানসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন প্রকাশ’

মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলায় ময়মনসিংহ-৭ (ত্রিশাল) আসনের সংসদ সদস্য এম এ হান্নানসহ আট জনের বিরুদ্ধে পাঁচ অভিযোগের প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা।

সোমবার রাজধানীর ধানমন্ডির আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থার অফিসে সংবাদ সম্মেলনে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। এ সময় তদন্ত সংস্থার প্রধান সমন্বয়ক আব্দুল হান্নান খান, জ্যেষ্ঠ সমন্বয়ক সানাউল হক এবং এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. মতিউর রহমান সেখানে ছিলেন।

আন্তর্জাতিক অপরাধ (ট্রাইব্যুনালস) আইনের ৩(১), ৪(১) ও ৪(২) ধারা অনুসারে হত্যা, গণহত্যা, ধর্ষণ, আটক, অপহরণ, নির্যাতন, গুম, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের পাঁচটি মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।

এ মামলায় এম এ হান্নানসহ পাঁচ আসামি গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন। অন্য চারজন হচ্ছেন- এম এ হান্নানের ছেলে রফিক সাজ্জাদ, ডা. খন্দকার গোলাম সাব্বির, মিজানুর রহমান মিন্টু ও হরমুজ আলী। পলাতক তিন আসামির নাম-পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি।

গত বছরের ২৮ জুলাই থেকে এ বছরের ১১ জুলাই পর্যন্ত এ আটজনের বিরুদ্ধে তদন্ত কার্যক্রম চলে। প্রতিবেদন তৈরিতে তদন্ত কর্মকর্তা হিসাবে কাজ করেছেন মোহাম্মাদ মতিউর রহমান।

মামলায় অভিযোগে বলা হয়- ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে এম এ হান্নান ছিলেন ময়মনসিংহ জেলা শান্তি কমিটির সাধারণ সম্পাদক। ফকরুজ্জামান ও গোলাম রব্বানি আলবদর বাহিনীর সশস্ত্র সদস্য হিসেবে হান্নানের সহযোগী ছিলেন।

গত বছরের ১ অক্টোবর প্রসিকিউশনের আবেদনে এ মামলার আট আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন ট্রাইব্যুনাল। পরে ওই দিনই ঢাকায় গ্রেফতার হন এম এ হান্নান ও তার ছেলে রফিক সাজ্জাদ। ময়মনসিংহ সদর ও ত্রিশালে গ্রেফতার হন বাকি তিনজন।

গত বছরের ১৯ মে এমপি হান্নানসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে মামলাটি দায়ের করেন শহীদ মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুর রহমানের স্ত্রী রহিমা খাতুন। মামলাটি আমলে নিয়ে ট্রাইব্যুনালে পাঠিয়ে দেন ময়মনসিংহের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক আহসান হাবিব।