Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১২:৪৩ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ২২শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

উল্টা-পাল্টা কথা বলছেন, ‘খালেদাকে তোফায়েল

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এমপি বলেছেন, খালেদা জিয়া নির্বাচনে না এসে হতাশায় ভুগছেন। তার দল বর্তমানে জনবিচ্ছিন্ন হয়ে রাজনীতিতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছে। তাই তিনি রাজনৈতিক শিষ্টাচার ছাড়াই উল্টা-পাল্টা কথা বলছেন।

মন্ত্রী আজ শুক্রবার বেলা ১১টায় শহরের গাজীপুর রোডস্থ নিজ বাসভবনে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত কর্মী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন সভায় সভাপত্বি করেন।

খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে মন্ত্রী বলেন, তার মধ্যে শিষ্টাচারের পরিবর্তে বর্তমানে উগ্রতা ভর করেছে। তিনি আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অবমাননার চেষ্টা করছেন। মূলত এর মাধ্যমে তিনি তার হতাশাকেই প্রকাশ করছেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, পবিত্র রমজান উপলক্ষে বর্তমানে বাজার মূল্য স্বাভাবিক রয়েছে। মূল্য নিয়ন্ত্রণে নিয়মিত বাজার মনিটরিং করা হচ্ছে। শুধু চিনির দাম ছাড়া সকল পণ্যের মূল্য নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। অতীতের যে কোন সময়ের চাইতে বাজার মূল্য সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রয়েছে বলে মন্ত্রী জানান।

কারণ হিসেবে মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থার ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। জীবন মানের উন্নতি এসেছে সর্বত্র। ক্রেতারা এখন আর পণ্য ক্রয় করতে গিয়ে দর কষা-কষি করেন না। এসব কিছুই সম্ভব হয়েছে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার দূরদর্শীতা ও বিচক্ষণতার সাথে দেশ পরিচালনার জন্য।

বাণিজ্য মন্ত্রী আরো বলেন, ভোলার নদী ভাঙ্গন রোধে ৪০০ কোটি টাকার একটি প্রকল্প একনেকে অনুমোদন হয়েছে। অচিরেই এর কাজ আরম্ভ করা হবে। এছাড়া জরুরি ভিত্তিতে ভাঙ্গন বন্ধে ১৩ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলছে। আগামীকাল থেকে নদীর নব্যতা ফিরিয়ে আনার জন্য এখানে ড্রেজিংয়ের কাজ শুরু করা হবে।

এসময় বাণিজ্য মন্ত্রী ভোলা নিয়ে তার স্বপ্নের কথা বলেন, ভোলার প্রধান সমস্যা যোগাযোগ ব্যবস্থা। তাই অচিরেই ভোলা-বরিশাল ব্রিজের কাজ আরম্ভ করা হবে। ইতোমধ্যে বিদেশী কয়েকটি কোম্পানি এখানে বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। এর মাধ্যমে সহজেই মানুষ সড়ক পথে ভোলা থেকে বরিশাল হয়ে পদ্মা সেতু দিয়ে ঢাকায় যেতে পারবে। এতে করে এই জনপদের দীর্ঘদিনের সমস্যার সমাধান হবে।

মন্ত্রী আরো বলেন, ভোলায় পর্যাপ্ত পরিমাণ গ্যাসের মজুত রয়েছে। এখানে গ্যাস ভিত্তিক শিল্প কারখানা নির্মাণ করা হবে। বিপুল কর্মসংস্থানের মাধ্যমে বেকারত্ব দুর হবে ভোলায়। এছাড়া জেলায় একটিও কাঁচা রাস্তা থাকবে না উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, জেলার ৭ উপজেলার সকল কাঁচা রাস্তা পাকা করার জন্য ৪০০ কোটি টাকার একটি প্রকল্প চূড়ান্ত অনুমোদনের অপক্ষোয় রয়েছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আজিজুল ইসলামের সঞ্চালনায় এখানে আরো বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ প্রশাসক আব্দুল মমিন টুলু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. মোশারেফ হোসেন, সম্পাদক নজরুল ইসলাম গোলদার। উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক আরজু, সাংগঠনিক সম্পাদক মাইনুল হোসেন বিপ্লব, পৌর মেয়র মনিরুজ্জামান মনির, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইউনুছ, পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি নজিবুল্লা নাজু, সম্পাদক আলী নেওয়াজ পলাশসহ সদর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের নির্বাচিত চেয়ারম্যানগণ।