Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:২৯ ঢাকা, বুধবার  ২১শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

আসাদুজ্জামান খান কামাল
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, ফাইল ফটো

‘উন্নয়ন ও অগ্রগতি রুখে দিতেই জঙ্গি হামলা’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, একাত্তরের পরাজিত শক্তি দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি রুখে দিতেই জঙ্গি হামলা চালাচ্ছে।

বুধবার দুপুরে বগুড়া শহীদ টিটু মিলনায়তনে জঙ্গিবাদ বিরোধি সমাবেশ এবং দু’জঙ্গি সদস্যের আত্মসমর্পন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

র‌্যাব-১২ এর অধিনায়ক ও এ্যাডিশনাল ডিআইজি শাহাবুদ্দিন খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম ওমর ও র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, জঙ্গিরা ইসলাম ধর্মের অপব্যাখা দিয়ে কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ তরুণদের পথভ্রষ্ট করছে এবং তরুনদের বিপথগামী করে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিচ্ছে।

তিনি বলেন, তারা বিদেশীদের হত্যা করে আন্তর্জাতিক সহযোগিতার পথ বন্ধ করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে এবং মুসলমান জাতিকে কলঙ্কিত করার চেষ্টা করছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করতে দেশী বিদেশী চক্রান্ত চলছে। এদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহবানে সাড়া দিয়ে সন্ত্রাস ও জঙ্গি বাদের বিরুদ্ধে দেশের শান্তিপ্রিয় মানুষ আজ ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদের জীবন দিয়ে জঙ্গীবাদ দমনে সক্ষম হয়েছে।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বিপথগামীদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার আহবান জানিয়েছেন। অন্যথায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তাদের খূঁজে বের করবে। যেসব পরিবারের সন্তানরা বিপথগামী হয়েছে তাদেরকে ফিরে আনার জন্য তিনি পরিবারের অভিভাবকদের প্রতি আহবান জানান।

তিনি বলেন, ইসলাম ধর্মকে কলঙ্কিত করার পথ থেকে যারা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবে তাদেরকে আমরা স্বাগত জানাবো।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পথভ্রস্টষ্টও বিপথগামীরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার জন্য যোগাযোগ করছে। শীঘ্রই আরো জঙ্গি সদস্যরা আত্মসমর্পন করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

তিনি জঙ্গিদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, বিনা কারনে রক্তপাত ইসলাম সমর্থন করে না। ইসলাম রক্তঋন পরিশোধে খুনের ধারা বন্ধ করতে বলেছে। শান্তির ব্যানার ব্যবহার করে যারা দেশে অশান্তি করছে সেই শকুনিদের ডানা ও কলিজা ছিড়ে ফেলা হবে।

তিনি বলেন, জঙ্গিরা দুএকটি পিস্তল, গ্রেনেড, এ কে ফোর টি রাইফেল নিয়ে আসলে জীবন নিয়ে ফিরে যেতে পারবে না। দেশের নিরাপত্তা বাহিনী কতটা শক্তিশালী তা সকলেই দেখেছে।

অনুষ্ঠানে বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার কামারপাড়া গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে আব্দুল হাকিম (২২) ও গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা উপজেলার হাটভরতখালি গ্রামের মৃত সেকেন্দার আলীর ছেলে মাহামুদুল হাসান বিজয় (১৭) নামের দুই জঙ্গি সদস্য র‌্যাবের কাছে আত্মসমর্পন করে। এসময় তাদেরকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার জন্য ৫ লাখ টাকা করে দুটি চেক প্রদান করা হয়।

দুই জঙ্গি সদস্য আব্দুল হাকিম ও বিজয় উপস্থিত সকলের উদ্যেশ্যে বলেন, আমরা যে পথে ছিলাম সে পথ অন্ধকারের। সে পথে যেন কেউ না আসে। আমরা ভূল পথে যাওয়ার জন্য সকলের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী এবং অনুতপ্ত।