Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:১১ ঢাকা, শনিবার  ১৭ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

“উনি এখনো পেয়ারে পাকিস্তান ভুলতে পারেন নাই”

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, উনি (খালেদা জিয়া) এখনো পেয়ারে পাকিস্তান ভুলতে পারেন নাই। দেশে বসে না পারে উনি (খালেদা জিয়া) এখন বিদেশে বসে গুপ্ত হত্যা চালাচ্ছেন। দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করছেন।

সোমবার বিকালে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জেল হত্যা দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগের সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শেখ হাসিনা বলেন, দেশের উন্নতি দেখলে তার (খালেদা জিয়া) মনে অশান্তি তৈরি হয়। তিনি দেশকে জঙ্গি রাষ্ট্র বানানোর চেষ্টা করছেন।

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন সম্পর্কে তিনি বলেন, বৈরি অবস্থার মধ্যেও নির্বাচনে ৪০ শতাংশ মানুষ ভোট দিয়েছে। বিএনপি-জামায়াত সারাদেশের ভোট কেন্দ্রগুলোতে আগুন দিয়েছে। তারপরও মানুষ ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় এনেছে। মানুষ বিএনপি জামায়াতকে প্রত্যাখ্যান করেছেন।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের মানুষের জীবন নিয়ে কাউকে ছিনিমিনি খেলতে দেয়া হবে না। বাংলাদেশ যখনই সামনের দিকে এগিয়ে যায় তখনই ষড়যন্ত্র শুরু হয়। কেউ ষড়যন্ত্র করে বাংলাদেশকে পেছনে ফেলতে পারবে না। দেশ এগিযে যাচ্ছে। আরো এগিয়ে যাবে।

খালেদা জিয়ার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, উনি এখনো পেয়ারে পাকিস্তান ভুলতে পারেন নাই। তার আন্দোলন হলো মানুষ পুড়িয়ে মারার আন্দোলন। তার ডাকা অবরোধ জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছেন।

শেখ হাসিনা বলেন, একমাত্র আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে দেশের উন্নয়ন হয়। আমরা দেশকে স্বাধীন করেছি। দেশের উন্নয়নে কাজ করে যাবো। কেউ উন্নয়নে যদি প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে তবে বাংলাদেশের মানুষ তাদের ক্ষমা করবে না। দেশের মানুষকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান তিনি।

এর আগে সোমবার বিকাল ৩টার দিকে সমাবেশে উপস্থিত হন শেখ হাসিনা।

এদিকে সমাবেশে উপস্থিত আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফ নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে বলেন, আপনারা ঘরে বসে না থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সহায়তা করুন।

কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেন, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমান বিদেশে বসে একের পর এক ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছেন।

এর আগে দুপুর থেকে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী, অঙ্গ ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতাকর্মীরা ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে সভাস্থলে উপস্থিত হন।

সমাবেশকে কেন্দ্র করে উদ্যানে নেয়া হয়েছে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা। উদ্যানে পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে।