Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৬:৫২ ঢাকা, শুক্রবার  ১৬ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

“উচ্চ শিক্ষা ক্ষেত্রে পাঁচ বছরের মধ্যে মেয়েরা সমতা অর্জন করবে”

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ আশা প্রকাশ করেছেন, আগামী পাঁচ বছরে বাংলাদেশের মেয়েরা উচ্চ শিক্ষা স্তরে সমতা অর্জন করবে।
তিনি বলেন, সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ২০১৫ সালের মধ্যে প্রাথমিক স্তরের শিক্ষায় ছেলে-মেয়েদের সমতা অর্জনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিলো। ২০১২ সালের মধ্যেই বাংলাদেশ এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করেছে। বর্তমানে প্রাথমিক স্তরে মেয়েদের অংশগ্রহণের হার ৫১শতাংশ এবং ছেলেদের ৪৯ শতাংশ। উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে এই হার মেয়েদের ৫৩ এবং ছেলেদের ৪৭ শতাংশ। আগামী পাঁচ/ছয় বছরের মধ্যে উচ্চ শিক্ষায় ও মেয়েরা সমতা অর্জন করবে,” তিনি আজ রাজধানীর নায়েম মিলনায়তনে এক আলোচনা অনুষ্ঠানে একথা বলেন।
‘বেগম রোকেয়া দিবস ২০১৫’ উপলক্ষে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের ব্রেকথ্রু প্রকল্প “বেগম রোকেয়ার স্বপ্ন : নারীর ক্ষমতায়ন” শীর্ষক এ আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ফাহিমা খাতুন অনুষ্ঠানে সভাপ্রধানের দায়িত্ব পালন করেন। অন্যান্যের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) এ এস মাহমুদ, অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন অর্থ) ড. অরুণা বিশ্বাস, ন্যাশনাল একাডেমি ফর একাডেমিক ম্যানেজমেন্ট (নায়েম)-এর মহাপরিচালক অধ্যাপক মো. হামিদুল হক, পরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ দিদারুল আলম প্রমুখ। মোহাম্মদপুর মডেল স্কুল এ্যান্ড কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র মেহেদী হাসান এবং শেরে বাংলা নগর উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী সাদিয়া ইসলাম লিজা শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি হিসেবে অনুষ্ঠানে সর্বযুগে বেগম রোকেয়ার স্বপ্ন ও চিন্তার প্রাসঙ্গিকতা তুলে ধরেন।
নুুরুল ইসলাম নাহিদবলেন, উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে সমাজের সকল ক্ষেত্রে নারীর সমান অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। আমরা আমাদের মেয়েদেরকে মানুষের মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত করতে পারলেই বিশ্বে আমাদের উচ্চ মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত হবে।
তিনি সমাজে ছেলেমেয়ের সম অধিকার নিশ্চিত করতে সমাজের বিশেষ করে পুরুষের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, মেয়েদেরও তাদের নিজেদের সম্পর্কে প্রচলিত ধ্যান ধারনা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।
অধ্যাপক ফাহিমা খাতুন বলেন, একশ’ বছর আগে বেগম রোকেয়া যে স্বপ্ন দেখেছিলেন তার আলোকেই আজ মেয়েরা এগিয়েছে। কিন্তু তা সত্বেও অন্ধকারের শক্তি ধর্মের নামে নারীকে অবগুন্ঠিত করে গৃহে বন্দী করতে চায়। তাদের এই মিথ্যে প্রলোভনে আমরা যেন পিছিয়ে না পড়ি।
তিনি আজ রোকেয়া দিবসে সবাইকে ধর্মীয় সন্ত্রাস ও মৌলবাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার অঙ্গীকার করার আহ্বান জানান।
অনুষ্ঠান শেষে শিক্ষা মন্ত্রী বেগম রোকেয়া দিবসে সমগ্র নারীর জাতির প্রতি সম্মান জানাতে একজন ছাত্রীকে ফুল দিয়ে অভিনন্দিত করেন। তিনি বলেন, “পুরুষ জাতির পক্ষ থেকে সমগ্র নারী জাতির প্রতি আমার প্রতিকী শ্রদ্ধা জানাচ্ছি।”