ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৭:০৭ ঢাকা, মঙ্গলবার  ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ওবায়দুল কাদের
আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, ফাইল ফটো

উগ্র সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গীবাদকে পরাজিত করবেই আ’লীগ

আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ উগ্র সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গীবাদকে পরাজিত করবেই।

তিনি বলেন, ‘উগ্র সাম্প্রদায়িকতাকে পরাজিত করে সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডকে অব্যাহত রেখে ২০৪১ সালের মধ্যে দেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিনিত করাই আওয়ামী লীগের এ সম্মেলনের অঙ্গীকার।’

আওয়ামী লীগের এ নেতা আরো বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সময়ের চাহিদার সাথে তাল মিলিয়ে দলকে আরো গতিশীল ও স্মার্ট করে তোলাই এবারের সম্মেলনে আমাদের প্রধান অঙ্গীকার।’

ওবায়দুল কাদের আজ সকালে রাজধানীর ঐতিহাসিক শহীদ সোহরাওয়াদী উদ্যানে আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির শৃঙ্খলা উপ-কমিটির এক বৈঠকে এ কথা বলেন।

এ সময় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ, এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন নাহার লাইলী, উপ-দপ্তর সম্পাদক এডভোকেট মৃনাল কান্তি দাস, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য এবং বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য এস এম কামাল হোসেন, একেএম এনামুল হক শামীম, আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওছার, আওয়ামী লীগ নেতা শফি আহমেদ, শাহাবুদ্দিন ফরায়েজী, দেলোয়ার হোসেন ও ইস্কান্দার মির্জা শামীম, ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশের বৃহত্তম ও প্রাচীন রাজনৈতিক সংগঠন আওয়ামী লীগের বর্ণাঢ্য ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি রয়েছে।

আওয়ামী লীগের ঐতিহ্যের সাথে প্রযুক্তির সমন্বয়ে প্রবীণ ও নবীনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নতুন কমিটি গঠিত হবে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনের কাউন্সিল অধিবেশনে ছয় হাজার ৫৭০ জন কাউন্সিলর এবং সমান সংখ্যক ডেলিগেটর অংশগ্রহণ করবেন। সম্মেলনে কাউন্সিলর ডেলিগেটর ছাড়াও দেশী-বিদেশী আমন্ত্রিত অতিথিরা অংশগ্রহন করবেন।
বিশ্বের ১৫টি দেশের রাজনৈতিক দলের আমন্ত্রিত অতিথিরা সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন বলে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর এই সদস্য বলেন, দেশের রাজনীতির ইতিহাসে আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলন সবচেয়ে সুশৃঙ্খল ও স্বতস্ফূর্তভাবে সম্পন্ন হবে।

তিনি বলেন, শৃঙ্খলা থেকে অন্যান্য প্রস্তুতির দিক থেকে আওয়ামী লীগের এ সম্মেলন দেশের গণতান্ত্রিক ইতিহাসে মাইলফলক হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে।

আওয়ামী লীগের এ সম্মেলনে দু’হাজার স্বেচ্ছাসেবক এবং দু’শ নারী স্বেচ্ছাসেবী সম্মেলনের সার্বিক শৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত থাকবেন বলে জানান ওবায়দুল কাদের।

আগামী ১৯ অক্টোবরের মধ্যে আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন প্রস্তুতির সকল কাজ শেষ করা হবে বলেও জানান আওয়ামী লীগের এ নেতা।

আগামী ২২ ও ২৩ অক্টোবর ঐতিহাসিক শহীদ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।