ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৬:৫৮ ঢাকা, রবিবার  ২৩শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

বেনজীর আহমেদ
র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ, ফাইল ফটো

‘ঈদকে ঘিরে র‌্যাবের নিরাপত্তা পরিকল্পনা’

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ বলেছেন, ঈদকে সামনে রেখে আগে ও পরে দেশজুড়ে দুই সপ্তাহের নিরাপত্তা পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে র‌্যাব।

তিনি বলেন, জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় দেশজুড়ে এই বাহিনীর ২৪৫টি পেট্রোল টিম কাজ করবে এবং ৫৬টি স্ট্রাইকিং রিজার্ভ ফোর্স নিয়োজিত থাকবে।

তিনি আজ শনিবার দুপুরে আসন্ন কোরবানির ঈদের নিরাপত্তা নিয়ে রাজধানীর কারওয়ান বাজারস্থ র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার মূখপাত্র কমান্ডার মূফতি মাহমুদ খান, মিডিয়া উইংয়ের সহকারী পরিচালক সিনিয়র এএসপি মো: মিজানুর রহমান ভুঁইয়া প্রমুখ।

র‌্যাবের মহাপরিচালক বলেন, সড়ক ও মহাসড়কে দুর্ঘটনা এড়াতে বিশেষ পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়েছে। এ দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ২৩, ২৪ ও ২৫ আগস্ট সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মহাসড়কে বিশেষ টহল ও চেকপোস্ট থাকবে। এছাড়া যানবাহনের ওভারস্প্রিড, নিয়ন্ত্রণহীন ও লাইসেন্সবিহীন চালকদের নজরদারি করা হবে।

তিনি বলেন, র‌্যাব হেডকোয়ার্টারের ফেসবুক পেজে চার ঘণ্টা পরপর সারাদেশের সব পথের অবস্থার আপডেট দেয়া হবে। র‌্যাবের ১৪ ব্যাটালিয়নের ফেসবুক পেজেও তাদের আওতাভুক্ত এলাকার আপডেট থাকবে। প্রয়োজন মনে করলে জনসাধারণ আপডেট দেখে বের হতে পারেন।

র‌্যাব ডিজি বলেন, রাজধানীতে ঈদুল-আজহার প্রধান জামাতসহ অন্যান্য ঈদ জামাতে র‌্যাবের পক্ষ থেকে কঠোর নজরদারি করা হবে। এছাড়া সারা দেশব্যাপী র‌্যাবের নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে। তিনি বলেন, দিনাজপুর ও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়াতে ঈদুল-আজহার বৃহত্তম দুটি ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। ঈদ উপলক্ষে কোন হুমকি না থাকলেও সব ধরনের নিরাপত্তা প্রস্তুতি আমাদের রয়েছে। আন্ডারগ্রাউন্ড বা সক্রিয় জঙ্গি সংগঠনগুলোর প্রতি গোয়েন্দা নজরদারি রয়েছে। নগরীর শপিংমল, বাস স্টেশন, টার্মিনাল ও পশুর হাটে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। এছাড়া জাতীয় ঈদগাহ ও দেশের বিভিন্ন মসজিদে নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হবে।

বেনজীর আহমেদ বলেন, ঈদে কোটি কোটি মানুষ ঢাকা ছেড়ে যাবেন এবং দেশের বিভিন্ন এলাকায় যাতায়াত করবেন। মানুষের ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে রাজধানীর এক্সিট পয়েন্টগুলোতে ২০টি অস্থায়ী ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে।

পশুর হাটের বেচা-কেনা জমে উঠতে শুরু করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বড় বড় বাজারগুলোতে র‌্যাবের অস্থায়ী ক্যাম্প থাকবে। যেসব বাজারে ক্যাম্প নেই সেখানে র‌্যাবের পেট্রোল টিম থাকবে। অজ্ঞান পার্টি-মলম পার্টির দৌরাত্ম রোধে র‌্যাব তৎপর রয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।