ব্রেকিং নিউজ

সকাল ১০:২৬ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ১৬ই আগস্ট ২০১৮ ইং

ইরাক যুদ্ধ নিয়ে ভুল গোয়েন্দা তথ্য এবং ভ্রান্ত পরিকল্পনার জন্য ক্ষমা চাইলেন ব্লেয়ার

সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ার ইরাক যুদ্ধ নিয়ে ভুল গোয়েন্দা তথ্য এবং ভ্রান্ত পরিকল্পনার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন। একই সঙ্গে তিনি বলেছেন, ইসলামিক স্টেট (আইএস) গোষ্ঠীর উত্থানের পেছনে ইরাক যুদ্ধ বলে যে দাবি উঠেছে, সেটা আংশিক সত্য।

ব্রিটেনের সাবেক প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্র-ভিত্তিক সিএনএন টেলিভিশনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন।  এর আগে গত ১২ বছর অসংখ্যবার ইরাক যুদ্ধ সঠিক ছিল বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। সাক্ষাতকারে নিজের দায় স্বীকার করে ২০০৩ সালে সাদ্দাম হোসেনের পতনের পরবর্তী সময়ে যথাযথ পরিকল্পনা নিতে না পারার ব্যর্থতার কারণে অনুশোচনা করেন সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। টনি ব্লেয়ার বলেন,আমি এখন এটা বলতে পারবো যে আমরা যে গোয়েন্দা তথ্য পেয়েছিলাম সেটা ভুল ছিল। কারণ যদিও সে (সাদ্দাম হোসেন) তার জনগণ ও অন্যদের বিরুদ্ধে ব্যাপকভাবে  রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করেছিল। তার কাছে যে পরিমাণ রাসায়নিক অস্ত্র ছিল বলে আমরা ধারণা করেছিলাম আসলে সেরকম ছিল না।

এছাড়া মার্কিন নেতৃত্বে হওয়া অপারেশন ইরাকি ফ্রিডমের পরিকল্পনাতেও ভুল ছিল বলে স্বীকার করে নিয়েছেন ব্লেয়ার। তারা ধারণা করেননি সাদ্দামকে উৎখাত করার পরে ইরাকের ভাগ্যে কী ঘটবে। তিনি বলেন, আমাদের পরিকল্পনায় কিছু ভুল ছিল, বিশেষ করে আমরা ভাবিনি যে সরকার পতনের পরে কী ঘটবে। সিএনএনের উপস্থাপক ফরিদ জাকারিয়া প্রশ্ন করেন, ইসলামিক স্টেটের উত্থানের পেছনে ইরাক যুদ্ধই মূল কারণ কি না। এর জবাবে ব্লেয়ার বলেন,  আমার মনে হয়, সত্যের উপাদান এটার (ইরাক যুদ্ধ) মধ্যে আছে। অবশ্যই আপনি বলতে পারেন না যে, ২০০৩ সালে আমরা যারা সাদ্দাম হোসেনকে উৎখাত করেছি, ২০১৫ সালের পরিস্থিতির জন্য আমাদের দায় নেই।

toni2তবে সাদ্দাম হোসেনকে উৎখাত করার বিষয়ে মোটেও অনুশোচনা নেই ব্লেয়ারের। তিনি মনে করেন, সাদ্দাম থাকলে এখনকার ইসলামিক স্টেটসের বিধ্বংসী কর্মকাণ্ডর সঙ্গে কোনো পার্থক্য থাকতো না। তিনি বলেন, সাদ্দামকে সরানোর জন্য ক্ষমা চাওয়া বেশ কঠিনই। আমি মনে করি যে ২০১৫ সালে এসেও এটা বলা যায়, সে থাকার চেয়ে না থাকাটাই বরং ভালো হয়েছে। নিজের ‘অপরাধের’ কথা স্মরণ করে তিনি বলেন, আমি যখন আমার অপরাধের কথা ভাবি, আপনি বলতে পারেন  সাদ্দামকে সরানোর কথা। আর এখন যখন দেখি সিরিয়াতে হাজারো মানুষ মারা যাচ্ছে আর আমরা দাঁড়িয়ে থেকে সেটা দেখেছি। আমরা পশ্চিমারা বিশেষ করে ইউরোপ এর জন্য দায়ী। আর আমরা এটা ঠেকাতে কিছুই করিনি। এটা ইতিহাসের বিচার যেটা গ্রহণ করতে আমি প্রস্তুত রয়েছি।

পরে ব্রিটেনের সাবেক প্রধানমন্ত্রীর এক মুখপাত্র বলেন, ইরাক যুদ্ধ নিয়ে ভুল গোয়েন্দা তথ্য ও ভ্রান্ত পরিকল্পনার জন্য টনি ব্লেয়ার সব সময়ই ক্ষমা চেয়ে আসছেন। তিনি সব সময়ই বলেন, আবারো বলেছেন যে তবে সাদ্দাম হোসেনকে উৎখাত করা ভুল ছিল না। ছয় বছর আগে ইরাক যুদ্ধ নিয়ে ব্রিটিশ সরকারের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী গর্ডন ব্রাউন একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন। স্যার জন চিলকটের নেতৃত্বে এ তদন্ত এখনো শেষ হয়নি। সে সময় ব্রাউন বলেছিলেন, তদন্ত শেষ হতে বছর খানেক লাগবে। সিএনএন ও ডেইলি মেইল।