ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১:২৭ ঢাকা, বুধবার  ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

জন চিলকট ইরাক তদন্ত রিপোর্ট পেশ করছেন।

ইরাক আক্রমণের আইনগত ভিত্তি ‘সন্তোষজনক নয়’

তের বছর আগে ইরাক আক্রমণে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে ব্রিটেনের যোগ দেয়া নিয়ে যে তদন্ত হয়েছে, তার চূড়ান্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ব্রিটিশ সরকার যে পরিস্থিতিতে যুদ্ধে যাবার আইনগত ভিত্তি ছিল বলে মনে করেছিল, সেটা মোটেই সন্তোষজনক নয়।

তদন্ত কমিটির চেয়ারম্যান জন চিলকট বলেছেন, ইরাককে নিরস্ত্র করার জন্য সকল শান্তিপূর্ণ উপায় না শেষ করেই ২০০৩ সালে ইরাক আক্রমণ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

তিনি বলেন, ইরাকের ব্যাপক বিধ্বংসী অস্ত্র বিশ্বকে মারাত্মক হুমকির মুখে ফেলেছ, এই কথা যত নিশ্চয়তার সাথে বলা হয়েছিল, তা গ্রহণযোগ্য নয়।

অধীর আগ্রহের সাথে অপেক্ষা করা এই প্রতিবেদন পেশ করার সময় মি: চিলকট বলেন, গোয়েন্দা তথ্য এটা সন্দেহাতীত ভাবে প্রমাণ করে নি, যে সাদ্দাম হোসেন রাসায়নিক এবং জীবাণু অস্ত্রের উৎপাদন অব্যাহত রেখেছিল।

জন চিলকট বলেন, ব্রিটেনের ইরাক নীতি ত্রুটিপূর্ণ গোয়েন্দা তথ্যের উপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছিল, যে তথ্য নিয়ে প্রশ্ন করা উচিত ছিল কিন্তু করা হয়নি।

ইরাক আক্রমণে ব্রিটেনের ভূমিকা নিয়ে তদন্ত করার জন্য সাত বছর আগে চিলকট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ার সহ ১০০জনেরও বেশি লোকের সাক্ষাৎকার নেয়।

মি: চিলকট বলেন, ইরাকে সামরিক অভিযানের পরে কী হবে, সে ব্যাপারে যথেষ্ট পরিকল্পনা ছিল না।

জন চিলকট টনি ব্লেয়ারের কথা যে, সামরিক অভিযানের পরে ইরাকের কী পরিস্থিতি হবে তা জানা সম্ভব ছিল না, তা সরাসরি প্রত্যাখ্যান করেন।

“অভ্যন্তরীণ সংঘাত এবং আল-কায়েদার তৎপরতা সম্পর্কে আগে থেকেই হুঁশিয়ারি দেয়া হয়েছিল,” তিনি বলেন। বিবিসি