Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৮:২৪ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা
প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা, ফাইল ফটো

ইভিএম পদ্ধতিতে কোন অনিয়মের সুযোগ নেই : সিইসি

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) খান মোহাম্মদ নূরুল হুদা বলেছেন, ইভিএম এমন একটি পদ্ধতি যেখানে কোন অনিয়ম করার সুযোগ নেই।

তিনি বলেন, সকল রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। “নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য সকল রাজনৈতিক দলকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য বিভিন্ন বাহিনীর মধ্যে সমন্বয় ও সহযোগিতার করার কথা বলা হয়েছে। শান্তি ও সহমর্মিতার মধ্যে দিয়ে তারা নির্বাচনী পরিবেশ বজায় রাখবেন।”

বগুড়া জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আজ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে এক মতবিনিমিয় সভা শেষে সাংবাদিকদের বিফ্রিংকালে সিইসি এসব কথা বলেন।

সিইসি বলেন, ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। এ জন্য আরপিও সংশোধন করতে আইন মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। যদি সংশোধন হয় তাহলে সীমিত আকারে কিছু কেন্দ্রে সেটি ব্যবহার করা হবে।

তিনি বলেন, “ইভিএম এমন একটি পদ্ধতি যেখানে কোন অনিয়ম করার সুযোগ নেই। আমাদের আসলে ইভিএম ব্যবহার করা উচিত। এর মাধ্যমে সকাল ৮টার আগে এবং বিকাল ৪টার পরে নতুন করে ভোট দিতে পারবে না। এটির মাধ্যমে একজন ভোটার একবারই ভোট দিতে পারবেন। ইভিএম সকলের জন্য প্রদর্শন করা হবে। সেখানে সকল রাজনৈতিক দল, সাংবাদিক, সুশীল সমাজকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। তারা সুচিন্তিত মতামত দিলে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।”

নূরুল হুদা বলেন, নির্বাচনে সকল কর্মকর্তারা পেশাদারিত্ব বজায় রেখে নির্বাচন সম্পন্ন করবেন। পেশাদারিত্ব থাকবে এবং জনগণ তাতে স্বত:স্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করবে। তফসিল ঘোষণার পর সিদ্ধান্ত হবে সেনা সদস্যরা কি দায়িত্ব পালন করবে। নির্বাচনের পুরো দিনক্ষণ ঠিক হয়নি। জানুয়ারীর প্রথম সপ্তাহে অথবা ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ নূরে আলম সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঞা, র‌্যাব, বিজিবি, আনসার ভিডিপি, গোয়েন্দা সংস্থাসহ জেলা উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।