Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৩:৩৪ ঢাকা, শনিবার  ১৭ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

আসাদুজ্জামান খান কামাল
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অাসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, ফাইল ফটো

ইজতেমাকে ঘিরে জঙ্গি হামলার হুমকি নেই : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, টঙ্গীর তুরাগ পাড়ে অনুষ্ঠেয় বিশ্ব ইজতেমাকে ঘিরে কোন ধরনের জঙ্গি হামলার হুমকি নেই।

মুসলিম উম্মার দ্বিতীয় সর্ববৃহৎ সম্মিলন বিশ্ব ইজতেমা আগামী ১৩ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আজ রোববার দুপুরে টঙ্গী পৌরসভা কার্যালয়ে ৫২তম বিশ্ব ইজতেমার চূড়ান্ত প্রস্তুতিমূলক পর্যালোচনা সভায় সভাপতির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বক্তব্য রাখেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে গাজীপুর, টঙ্গী-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ মো. জাহিদ আহসান রাসেল, মহাপুলিশ পরিদর্শক (আইজিপি) একেএম শহীদুল হক, ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার হেলাল উদ্দিন আহমেদ, ডিএমপি’র অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মো. মিজানুর রহমান, এসবি’র অতিরিক্ত আইজিপি ড. জাবেদ পাটোয়ারী, ঢাকা রেঞ্জের পুলিশের ডিআইজি এস এম মাহফুজুল হক নুরুজ্জামান, গাজীপুর জেলা প্রশাসক এস,এম আলম,গাজীপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট আজমত উল্লাহ খান, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়র আসাদুর রহমান কিরণ, বিশ্ব ইজতেমার মুরুব্বি প্রকৌশলী মেজবাহ উদ্দিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিশ্ব ইজতেমার সামগ্রিক প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে। আইনশৃংখলা বাহিনীর পক্ষ থেকে সকল ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

এবছর গাজীপুরের টঙ্গীতে অনুষ্ঠেয় ৫২তম বিশ্ব ইজতেমা সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে পারবো বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
আসাদুজ্জামান কামাল বলেন, টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে আমাদের গোয়েন্দা সংস্থা মাঠে কাজ করছেন। আমাদের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা অত্যন্ত চৌকস। এখনও পর্যন্ত সব কিছু আমাদের নিয়ন্ত্রণে আছে। আমরা সব সময় প্রস্তুত আছি। আশা করি, কোন ধরনের অসুবিধা হবে না।

তিনি বলেন, ইজতেমা মাঠের ভেতরে ও বাহিরে পুলিশ, র‌্যাব, সেনাবাহিনী, গোয়েন্দা পুলিশ, আনসার সদস্য, ফায়ার সার্ভিসসহ সরকারের বিভিন্ন বাহিনীর লোকজন নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবেন।

মুক্তিযুদ্ব বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক জঙ্গীবাদ প্রসঙ্গে বলেন, টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমা মাঠে পোশাকে ও সিভিলে আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা পুরো মাঠ জুড়ে সর্বদা নিয়োজিত থাকবেন। সরকারের পক্ষ থেকে ময়দানের ভেতরে ও বাহিরে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ২০১৭ সালের ৫২তম বিশ্ব ইজতেমা দু’পর্বে অনুষ্ঠিত হবে। আমরা যেন ভালভাবে বিশ্ব ইজতেমা শেষ করতে পারি, সেজন্য সকলকে মিলেমিশে কাজ করতে হবে।

যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ মো. জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, এবারের বিশ্ব ইজতেমায় ১৩টি গভীর নলকূপ বসানো হয়েছে। এতে করে দৈনিক ৩ কোটি ৫৫ লাখ লিটার পানি সরবরাহ করা হবে।

মহাপুলিশ পরিদর্শক (আইজিপি)এ কে এম শহীদুল হক বলেন, এবছর টঙ্গীর ৫২তম বিশ্ব ইজতেমা নিরাপদ, শান্তিপ্রিয় ও সুশৃংখলভাবে সম্পন্ন হবে বলে আশা করি। যে পরিমাণ ফোর্স দরকার সেখানে সেই পরিমান ফোর্স দেয়া হবে।