Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৩:৩৮ ঢাকা, শুক্রবার  ১৬ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

সিএমএম আদালত, বরিশাল
সিএমএম আদালত, বরিশাল

ইউএনওকে হেনস্থা ইস্যু: সিএমএমকে প্রত্যাহারের প্রস্তাব

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) গাজী তারিক সালমনকে নাজেহালের ঘটনায় বরিশালের চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) মো. আলী হোসাইনকে প্রত্যাহারের প্রস্তাব সুপ্রিমকোর্টে পাঠিয়েছে আইন মন্ত্রণালয়।

সুপ্রিমকোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের অতিরিক্তি রেজিস্ট্রার (প্রশাসন ও বিচার) মো. সাব্বির ফয়েজ বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন। প্রস্তাবে বরিশালের মুখ্য মহানগর হাকিম আলী হোসাইনকে অন্যত্র বদলি করার কথা বলা হয়েছে জানিয়ে মো. সাব্বির ফয়েজ বলেন, সুপ্রিমকোর্টের জেনারেল অ্যাডমিন্টিস্ট্রেশন (জিএ) কমিটি এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে তা আইন মন্ত্রণালয়কে জানাবে।

গত বছর গাজী তারিক সালমন বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকাকালে ২৬ মার্চ স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠানের জন্য একটি আমন্ত্রণপত্র ছাপান। আমন্ত্রণপত্রের পেছনের পাতায় বঙ্গবন্ধুর ছবি ছাপানো হয়। ওই আমন্ত্রণপত্রে ছাপানো বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃত হয়েছে এবং পেছনের পাতায় বঙ্গবন্ধুর ছবি ছাপানোয় মানহানি হয়েছে উল্লেখ করে ৭ জুন বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক ও জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এডভোকেট ওবায়েদুল্লাহ সাজু বাদী হয়ে গাজী তারিক সালমনের বিরুদ্ধে বরিশাল চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ক্ষতিপূরণ চেয়ে একটি মামলা রুজু করেন। ওই দিন মামলা আমলে নিয়ে বিচারক ২৭ জুলাইয়ের মধ্যে গাজী তারিক সালমনকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়ে সমন জারি করেন। সেই আদেশ অনুযায়ী গত ১৯ জুলাই বেলা ১১টায় গাজী তারিক সালমন আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করেন। ওইদিন প্রথমে গাজী তারিক সালমনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেয় আদালত। এরপর দুই ঘণ্টা পর তার জামিন হয়। এ খবর প্রকাশের পর এ নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়। ওই মামলা দায়েরকারীকে ইতোমধ্যে দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

ওই মামলার বিচারক বরিশালের চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. আলী হোসাইনের সার্কিট হাউজের বকেয়া ভাড়া পরিশোধ না করা ও লঞ্চের ভাড়া না দেয়ার বিষয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এ বিষয়টিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানায়।

উল্লেখ্য, সংবাদ প্রকাশের পরে তিনি সার্কিট হাউজের বকেয়া ভাড়া পরিশোধ করেছেন বলে জানাগেছে।