ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৪:০৮ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ১৬ই আগস্ট ২০১৮ ইং

ইইউ’র জানা উচিত,আইন অনুযায়ী যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চলছে : প্রধানমন্ত্রী

2014-10-30_8_400830শীর্ষ মিডিয়া ৩০ অক্টোবর ঃ   প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবাধিকার লঙ্ঘনের অজুহাত তুলে জামায়াত নেতা মতিউর রহমান নিজামীর মৃত্যুদণ্ডাদেশের ব্যাপারে ইউরোপীয় ইউনিয়নের উদ্বেগের তীব্র সমালোচনা করে বলেছেন, দেশের আইন অনুযায়ী মানবাধিকার লঙ্ঘনকারীদের বিচার ও শাস্তি দেয়া হবে।

তিনি বলেন, ‘তারা সবসময়ই মানবাধিকার লঙ্ঘনকারীদের অধিকার বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে থাকে। তাহলে কিভাবে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বন্ধ হবে ?
প্রধানমন্ত্রী আজ গণভবনে এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে ইইউ’র উদ্বেগ প্রসঙ্গে একথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর সাম্প্রতিক সংযুক্ত আরব আমিরাত সফরের সফলতা তুলে ধরতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
শেখ হাসিনা দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বলেন, দেশ থেকে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মূল করা হবে এবং মানবাধিকার রক্ষা করা হবে। এ জন্য মানবাধিকার লঙ্ঘনকারীদের দেশের প্রচলিত আইনের আওতায় এনে বিচার করা হবে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার নতুন কিছু নয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এখনও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চলছে। তাদের বয়স ৯০ অথবা ১শ’ বছর। সে জন্য কি তাদের বিচার থেমে আছে ?
তিনি বলেন, তারাই সঠিক, আমরা নই। তিনি প্রশ্ন করে বলেন, যুদ্ধাপরাধীরা কোন অপরাধটি করেনি ? তারা ধর্ষণ, লুণ্ঠন, অগ্নিসংযোগ এবং বুদ্ধিজীবী হত্যাসহ সবকিছুই করেছে। নিজামী কি ছিল, তা সবাই জানে।
শেখ হাসিনা বলেন, ইইউ’র জানা উচিত, দেশের আইন অনুযায়ী যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চলছে। ট্রাইব্যুনাল আন্তর্জাতিক মানদণ্ড  অনুযায়ী কাজ করছে এবং সকল আন্তর্জাতিক আইন বজায় রেখে বিচার কাজ চালাচ্ছে।
প্রধানমন্ত্রী প্রশ্ন করেন, ইসরাইলী সৈন্যরা যখন নারী ও শিশুসহ নৃশংসভাবে ফিলিস্তিনি জনগণকে হত্যা করে, তখন তাদের উদ্বেগ কোথায় ছিল? এটা কি মানবাধিকার লঙ্ঘন নয় ?