ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৬:০৬ ঢাকা, মঙ্গলবার  ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

আ.লীগ- স্বৈরাচার মিলে ধ্বংস করেছে গণতন্ত্রকে: জামায়াত

আওয়ামী লীগ সরকার স্বৈরাচারী এরশাদকে সঙ্গে নিয়ে জনগণের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়েছে এবং গণতন্ত্রকে ধ্বংস করেছে বলে মন্তব্য করেছেন জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান। তিনি বলেন, অবৈধ ক্ষমতাকে বৈধ করার জন্য ভোট ডাকাতির প্রহসনের নির্বাচন করে জনগণের ভোটাধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছিল। জনগণ আন্দোলন করে ‘স্বৈরশাসনের পতন ঘটিয়ে’ ভোটাধিকার আদায় করেছিল। কিন্তু আজকে আবার আওয়ামী মহাজোট সরকার স্বৈরাচারী এরশাদকে সঙ্গে নিয়ে জনগণের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়েছে এবং গণতন্ত্রকে ধ্বংস করেছে।  জাতিকে এ অবস্থা থেকে উদ্ধার করার জন্য আন্দোলনের কোন বিকল্প নেই বলেও উল্লেখ করেন তিনি। গণতন্ত্র মুক্তি দিবস উপলক্ষে শুক্রবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, জেনারেল এরশাদ ১৯৮২ সালের ২৪ মার্চ নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করে জাতির ঘাড়ে চেপে বসেছিলেন। ১৯৮২ সাল থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ  ৯ বছর দু:শাসন চালিয়ে তিনি গণতান্ত্রিক রীতি-নীতি, নির্বাচন ব্যবস্থা ও গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানসমূহ ধ্বংস করে দিয়েছিলেন।

বিবৃতিতে ডা. শফিক বলেন, “ ৬ ডিসেম্বর ‘গণতন্ত্র মুক্তি দিবস’। ১৯৯০ সালের ৬ ডিসেম্বর দেশের জনগণ আন্দোলনের মাধ্যমে জেনারেল এরশাদের স্বৈরশাসনের পতন ঘটিয়ে ‘তত্ত্বাবধায়ক সরকারের’ অধীনে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত করার দাবি আদায় করেছিল এবং গণতন্ত্র মুক্তি পেয়েছিল। জনগণ তাদের ভোটাধিকার  ফিরে পেয়েছিল।

তাই জনগণের ন্যায্য ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনার জন্য আন্দোলন গড়ে তোলার লক্ষ্যে জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকে ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী শনিবার ‘গণতন্ত্র মুক্তি দিবস’ পালন করার জন্য আমি জামায়াতের সকল শাখার প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি এবং দেশবাসীর সহযোগিতা কামনা করছি।