ব্রেকিং নিউজ

ভোর ৫:২৪ ঢাকা, বুধবার  ১৭ই জানুয়ারি ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

আ.লীগ ক্ষমতায় এলেই সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতন হয়

যখনই আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসে, তখনই দেশে সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতন শুরু হয় বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেন।

বুধবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির অডিটরিয়ামে ‘মাইনরিটি টর্চার বাই আওয়ামী লীগ’ শীর্ষক একটি সংকলনের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।
বিএনপির মানবাধিকার সেল বইটি প্রকাশ করেছে। সঙ্কলিত বইটির উপর আলোচনা করেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন, সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী ও অ্যাডভোকেট গৌতম চক্রবর্তী, শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. সুকোমল বড়ুয়া, বিএনপি নেতা অমলেন্দু দাস, অ্যাডভোকেট জন গোমেজ প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে খন্দকার মাহবুব বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসেই সংখ্যালঘুদের ধন-সম্পত্তি দখল করে। অথচ দলটি বরাবরই দাবি করে যে, তারা সংখ্যালঘুবান্ধব ও অসাম্প্রদায়িক।
তিনি বলেন, বিএনপি এসব নির্যাতনের তথ্য সংকলন করে ‘মাইনরিটি টর্চার বাই আওয়ামী লীগ’ বইটি প্রকাশ করেছে। এখানে সংখ্যালঘু নির্যাতন, অত্যাচার ও তাদের বাড়ি-ঘর লুটতরাজের কাহিনী রয়েছে।
খন্দকার মাহবুব বলেন, জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনের মাধ্যমে সংখ্যালঘু নির্যাতনের এ কাহিনী তদন্ত করা হোক। তাহলে এসব ঘটনা কারা করছে তা বেরিয়ে আসবে।
তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে ভোট ব্যাংক হিসেবে মনে করে এবং এটা বলে ক্ষমতায় আসে। এখন আর সে স্বপ্ন বাস্তবায়ন হবে না। সংখ্যালঘু নির্যাতনের শ্বেতপত্র প্রকাশ করতে হবে। তাহলে দেশবাসীসহ সারা বিশ্বের মানুষ প্রকৃত ঘটনা জানতে পারবে।
অনুষ্ঠানে ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, আমাদের রাষ্ট্রটি এমন একটা অবস্থায় আছে, যেখানে কোনো ধর্মের মানুষেরই নিরাপত্তা নাই। মুসলমানরা টুপি পড়লে কিংবা দাঁড়ি রাখলে তাদের জঙ্গি হিসেবে চিহ্নিত করা হচ্ছে। অন্য ধর্মের মানুষও নিরাপত্তা পাচ্ছে না।
তিনি বলেন, দেশে সংখ্যালঘুদের সম্পত্তি দখল করছে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা। অথচ মানবাধিকার কমিশন কিছু বলছে না। আমরা এমন ‘পুতুল’ কমিশনের পদত্যাগ চাই।