Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৩:১১ ঢাকা, শনিবার  ১৭ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

আমি আপনাকে ধন্যবাদ জানাই, ‘খালেদাকে-নাসিম

আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম জাতীয় শোক দিবসে মিথ্যা জন্মদিন পালনের নামে কেক না কাটার জন্য বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘বেগম খলেদা জিয়াকে বলবো, আপনি তথাকথিত মিথ্যা জন্মদিনে কেক কাটা বন্ধ করেছেন ভালো কথাÑ এতো বড় শুভবুদ্ধির উদয় হয়েছে আপনার, এ জন্য আমি আপনাকে ধন্যবাদ জানাই।’

নাসিম আজ দুপুরে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট আব নিউরোসায়েন্সেস ও হসপিটাল (এনআইএনএস) মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪১তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এনআইএনএস শাখা স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

বেগম খালেদা জিয়ার উদ্দেশ্য মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘আপনি ১৫ আগস্ট মিথ্যা জন্মদিনে কেক কাটা কেন বন্ধ করছেন, স্পষ্টভাবে বলেন না কেন? কি সব বলেন, বন্যার জন্য কেক কাটা বন্ধ করছি। সত্য কথা বলেন, বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা দেখিয়ে, শোক দিবসের প্রতি শ্রদ্ধ জানিয়ে আমি কেক কাটা বন্ধ করেছি। খেলে সরাসরি খাবেন, ঘুরিয়ে খাবেন কেন। সত্য কথা বলেন, মানুষ আপনাকে ধন্যবাদ জানাবে।’

এনআইএনএস শাখা স্বাচিপের সভাপতি ডা. এম এস জহিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. বদিউজ্জমান ভূঁইয়া ডাবলু, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মো. নুরুল হক, এনআইএনএস-এর পরিচালক অধ্যাপক ডা. কাজী দীন মোহাম্মদ, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলান, মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এম এ আজিজ, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. উত্তম বড়–য়া প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। কোন হায়নার দল এ দেশের অগ্রযাত্রাকে রুখতে পারবে না। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাক তা ’৭১-এর পরাজিত শক্তিরা চায় না। তাই এখনও তারা নানাভাবে দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে।

জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে দেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, যাদের পিতা-মাতা নিজের সন্তানের লাশ নিতে চায় না, বলে সন্তানের লাশ আঞ্জুমান মফিদুলে দিয়ে দিতে। তাহলে বুঝতে হবে জঙ্গিবাদীরা কোনদিন জয়ী হবে না।