ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৮:৩৭ ঢাকা, সোমবার  ২০শে আগস্ট ২০১৮ ইং

আমার বক্তব্য বিকৃত ও খণ্ডিতভাবে প্রকাশ করেছে:এইচ টি ইমাম

এইচ টি ইমাম দাবি করেছেন, ছাত্রলীগের উদ্দেশে তার দেয়া বক্তব্য গণমাধ্যমে বিকৃত ও খণ্ডিতভাবে প্রকাশ করা হয়েছে। তিনি বলেন, আমার ৪৭ মিনিটের বক্তব্য খন্ডিত আকারে প্রকাশ করায় এ নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে। গণমাধ্যম পুরো বক্তব্য শুনে সংবাদ পরিবেশন করলে এ বিভ্রান্তি সৃষ্টি হতো না। এটি স্বাধীনতা বিরোধীদের চক্রান্ত বলেও উল্লেখ করেন তিনি। আজ সকালে ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

বিতর্কিত মন্তব্যের কারণে বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের দাবির মুখে পদত্যাগ করবেন কিনা এমন প্রশ্নে জবাবে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম বলেন, পদত্যাগের প্রশ্নই ওঠে না। আর বিএনপি এখন বিরোধীদলও নয়, তাদের কথায় কেন পদত্যাগ করব? প্রধানমন্ত্রীর সাথে কোনো কথা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী অসুস্থ। তাই ওনার সাথে কথা হয়নি।

এইচ টি ইমাম বলেন ৫ জানুয়ারির নির্বাচন ও চাকরিতে দলীয়করণ নিয়ে তার বক্তব্যকে খন্ডিত করে তুলে ধরে অপপ্রচার করা হয়েছে , আমি ছাত্রলীগকে প্রয়োজনে রাত জেগে পড়াশোনা করতে বলেছি। তারপর নিয়োগ পরীক্ষাগুলোতে ভালো ফল অর্জন করতে পারলে চেষ্টা করা যেতে পারে এমন কথা বলেছি। আমি ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের পড়াশোনার প্রতি মনোযাগী হওয়ার তাগিদ দিয়েছি। প্রধানমন্ত্রীসহ আওয়ামী লীগের সব নেতারাই ছাত্রলীগকে মেধা অর্জনের জন্য পরামর্শ দিয়ে থাকেন। তিনি বলেন, যেকোন ভাইভা বোর্ডে কী করতে হবে, কিভাবে যেতে হবে এসব বিষয়ে ছাত্রলীগকে সহযোগিতার করার কথা বলেছি। আমরা একটি দায়িত্বশীল প্রশাসন চাই। আর এটা করতে হলে মেধাবীরাই চাকরিতে সুযোগ পাবেন। ধুম্রজাল সৃষ্টি করে সরকারের উন্নয়ন পরিকল্পনায় বাধা দেয়ার ষড়যন্ত্র কাজে আসবে না। আমার বক্তব্য যদি পুরো প্রচার করা হয় তাহলে সব বিভ্রান্তির অবসান হবে। তিনি কোনো বক্তব্য খণ্ডিতভাবে উপস্থাপন না করার অনুরোধ করেন।

উল্লেখ্য,গত বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) ছাত্রলীগ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় এইচ টি ইমাম ৫ জানুয়ারির নির্বাচন সম্পর্কে বলেন, নির্বাচনের সময় আমি প্রত্যেকটি উপজেলায় কথা বলেছি, সব জায়গায় আমাদের যারা রিক্রুটেড, তাদের সঙ্গে কথা বলে, তাদেরকে দিয়ে মোবাইল কোর্ট করিয়ে আমরা নির্বাচন করেছি। ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, তোমাদের লিখিত পরীক্ষায় ভালো করতে হবে।তার পরে আমরা দেখব। ছাত্রলীগের পাসের দায়িত্ব সরকারের। এহেন ঘটনায় সরকারী দল ও প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত ক্ষুব্ধ হন যা সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়। বিএনপিও বক্তব্যর সূত্র ধরে সরকারের সমালোচনা করে আসছে ।

 Like & share করে অন্যকে দেখার সুযোগ দিন