ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৭:৩১ ঢাকা, রবিবার  ২৩শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

আবারো মানবতা দেখালেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তিনজন অসুস্থ চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব ও একজন বংশীবাদককে আর্থিক সহায়তা প্রদান করে আবারো মানবতা দেখালেন প্রধানমন্ত্রী। তারা তাদের মেধার মাধ্যমে সারাজীবন সাধারণ মানুষকে বিনোদন দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী অসুস্থ চলচ্চিত্র অভিনেতা আবদুস সামাদ (চলচ্চিত্রে টেলিসামাদ হিসেবে খ্যাত), চলচ্চিত্র পরিচালক শহীদুল ইসলাম খোকন, ‘রঙিন রূপবান’ ছবির অভিনেতা আবদুস সাত্তার এবং বংশীবাদক বাসুদেব দাসকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছেন। অতি সম্প্রতি আরও কয়েকজনকে একই ভাবে সহায়তা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
প্রধানমন্ত্রী আজ বিকেলে তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে তাদের প্রত্যেকের পরিবারের কাছে ২০ লাখ টাকা করে সঞ্চয়পত্র তুলে দেন।
সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বদের সঙ্গে আলাপকালে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি তাঁর ছোট বোন শেখ রেহানার কাছ থেকে তাদের অসুস্থতার কথা জানতে পারেন। শেখ রেহানা জাতীয় দৈনিকগুলো থেকে এ তথ্য সংগ্রহ করেন। অসুস্থ সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বরা তাদের এই দুর্দিনে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।
এ সময় টেলিসামাদ আবেগ আপ্লুত কণ্ঠে বলেন, তিনি সারাজীবন সাধারণ মানুষকে বিনোদন দিয়েছেন। কিন্তু তিনি আজ গুরুতর অসুস্থ।
জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অসুস্থ সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বদের জন্য সরকারের কিছু দায়-দায়িত্ব রয়েছে। কারণ তারা সারাজীবন তাদের কাজের মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে আনন্দ দিয়েছেন। এসময় শেখ হাসিনা টেলিসামাদের বেশ কয়েকটি সংলাপের কথা উল্লেখ করেন।
বংশীবাদক বাসুদেব দাস বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তাঁর কন্যা শেখ হাসিনার কাছে জাতীয় পতাকা তুলে দিয়েছেন। এখন এই পতাকা রক্ষা করা ও জাতির মর্যাদা সমুন্নত রাখা তাঁর দায়িত্ব ও কর্তব্য।
অশ্রুসজল নয়নে আবদুস সাত্তার বলেন, রঙিন রূপবানসহ বিভিন্ন চলচ্চিত্রে তিনি অভিনয় করেছেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর ওপরও একটি চলচ্চিত্র তৈরি করেছেন।
আবদুস সাত্তার বলেন, ‘আজ আমি গর্ব অনুভব করছি। কারণ বঙ্গবন্ধুর কন্যা আমার দুর্দিনে আর্থিক সহায়তা নিয়ে এগিয়ে এসেছেন।
অনুষ্ঠানে অসুস্থ চলচ্চিত্র পরিচালক শহীদুল ইসলাম খোকনের স্ত্রী জয়া চৌধুরী তার স্বামীর শারিরীক অবস্থা সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করেন।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব একেএম শামীম চৌধুরী এবং বিশেষ সহকারী মাহবুবুল হক শাকিল উপস্থিত ছিলেন।