আফগান যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ে হামলা
গোলাগুলির দৃশ্য। ছবিঃ রয়টার্স

আফগান যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ে হামলা, নিহত ৭

রয়টার্স জানায় তালেবানদের সঙ্গে শান্তি আলোচনা শুরু করার প্রচেষ্টা সত্ত্বেও রাজধানীতে আফগানিস্তানের কেন্দ্রীয় কাবুলের আফগান যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের ওপর হামলায় কমপক্ষে সাত জন নিহত হয়েছে।

দুপুরের কিছুদিন আগেই এই হামলা শুরু হয়েছিল, যখন শহরের একটি ব্যস্ত বাণিজ্যিক এলাকায় মন্ত্রণালয়ে অনুপ্রবেশের সময় একটি আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়।

নিহতদের মধ্যে চারজন বেসামরিক নাগরিক ও তিন পুলিশ কর্মকর্তা, অন্য 8 জন বেসামরিক নাগরিক আহত হয়েছেন বলে সরকারি এক কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

“কর্মকর্তা জানিয়েছেন আমরা একজন বন্দুকধারীর অফিস অফিস খুলে দেওয়ার চেষ্টা করছিলাম এবং আমরা বাইরে যাচ্ছিলাম, সে আমাদের গুলি করার চেষ্টা করছিল এবং সে চিৎকার করে বললো, ‘আমি এখানে সবাইকে মেরে ফেলব’, বলেছেন সৈয়দা রশিদ। তিনি বলেন, কমপক্ষে ছয়জন নারী আহত হয়েছে। –সূত্র: রয়টার্স

অপরদিকে ডন পত্রিকা জানায়, আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে তথ্য ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের হামলার ঘটনা ঘটেছে। বন্দুকধারীদের চালানো এ হামলায় কেউ নিহত না হলেও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

শনিবার সকাল ১১টা ৪০ মিনিটের দিকে এ হামলা চালানো হয়।

আফগান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নাসরাত রাহিমি হামলার ঘটনা স্বীকার করে জানিয়েছেন, আকস্মিক এ হামলার পর নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দুই হামলাকারী নিহত হয়েছে।

নাসরাত রাহিমি জানান, ৩ আত্মঘাতী হামলাকারী মন্ত্রণালয়ের ভেতরে ঢুকে যায়। তবে পুলিশ তাদের সঙ্গে সঙ্গে টার্গেট করায় বড় ধরণের কোনো হামলা তারা চালাতে পারেনি।

তথ্য মন্ত্রণালয় ভেতরে চালানো এ হামলার বিষয়ে পরবর্তীতে বিস্তারিত ব্রিফিং দেয়া হবে বলেও জানান তিনি। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, তথ্য ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের ভবনে তারা গোলাগুলির আওয়াজ শুনেছেন।

দেশটির পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, এ হামলায় মোট ৩ জন অংশ নিয়েছিল, যাদের মধ্যে ২ জন ঘটনাস্থলেই পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছে।

নগরীর ব্যস্ততম বাণিজ্যিক এলাকার যে ভবনটিতে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অবস্থান তার প্রবেশ পথে বিস্ফোরণ ঘটানোর মাধ্যমে হামলা শুরু করে বন্দুকধারীরা।এরপর গুলিবর্ষণ শুরু করে তারা।

তালেবান বা অন্য কোনো সংগঠন এখন পর্যন্ত এ হামলার দায় স্বীকার করেনি। হামলার পর থেকে পুলিশ ভবনটির আশপাশের এলাকা বন্ধ করে দিয়েছে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের ১৮তলা ভবনটি কাবুলের উঁচু ভবনগুলোর মধ্যে অন্যতম। এর আশপাশে আরও কয়েকটি মন্ত্রণালয়, প্রেসিডেন্টের বাসভবন ও শহরের সবচেয়ে জনপ্রিয় আবাসিক হোটেলের অবস্থান। –সূত্র: ডন