Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৩:২০ ঢাকা, বুধবার  ২১শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

আনন্দমুখর পরিবেশে বই উৎসব পালিত

আনন্দমুখর পরিবেশে আজ বৃহস্পতিবার রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে বই উৎসব পালিত হয়েছে।
হরতাল থাকা সত্ত্বেও দেশের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিনামূল্যে নতুন পাঠ্যবই শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেয়া হয়। বই হাতে পেয়ে শিক্ষার্থীরা আনন্দে মেতে ওঠে। আনন্দ-উদ্দীপনার সঙ্গে নতুন বই নিয়ে শিক্ষার্থীরা বাড়ী ফিরেছে।
কেন্দ্রীয়ভাবে এ বছর শিক্ষা এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় রাজধানীর মতিঝিল সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে এই বই উৎসবের আয়োজন করে।
শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ প্রধান অতিথি হিসেবে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে বই উৎসবের সূচনা করেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান।
মৌলভীবাজার সংবাদদাতা জানান, জেলায় উৎসব মূখর পরিবেশে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশুদের বরন ও ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে এম সাইফুর রহমান অডিটোরিয়ামে বই বিতরণ করা হয়েছে। সমাজকল্যান মন্ত্রী সৈয়দ মহসীন আলী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এই বই বিতরণ করেন।
জেলা প্রশাসক কামরুল হাসানের সভাপতিত্বে বিনামূল্যে বই বিতরণ উৎসবে উপস্থিত ছিলেন জেলা শিক্ষা অফিসার সুবোধ চন্দ্র চৌধুরী ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার পঞ্চানন বালা।
শিশু বরণ শেষে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেন অতিথিরা। এবছর জেলায় প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে ৪৪ লক্ষ ২৫ হাজার বই বিতরণ করা হচ্ছে।
খুলনা অফিস জানায়, জেলায় আজ সরকারি করোনেশন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে খুলনা বিভাগীয় পর্যায়ে পাঠ্যপুস্তক উৎসব-২০১৫ উদযাপন করা হয়।
খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য মুহাম্মদ মিজানুর রহমান শিক্ষার্থীদের হাতে পাঠ্যপুস্তক তুলে দিয়ে এ উৎসবের উদ্বোধন করেন। এ উপলক্ষে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, খুলনা অঞ্চলের আয়োজনে স্কুল প্রাঙ্গনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
খুলনা অঞ্চলের ১৬ লাখ ৭৭ হাজার শিক্ষার্থীদের মাঝে তিনটি স্তরে মোট চার কোটি ৬ লাখ ৯০ হাজার ২১৯টি বই বিতরণ করা হয়।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন বিভাগীয় কমিশনার মোঃ আবদুস সামাদ, খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি মনির-উজ-জামান, খুলনা জেলা পরিষদ প্রশাসক শেখ হারুনুর রশীদ, জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামাল, খুলনা পুলিশ সুপার মোঃ হাবিবুর রহমান এবং খুলনা বিভাগের প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে উপ-পরিচালক শেখ মোঃ রায়হান উদ্দীন।
সভাপতিত্ব করেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের খুলনা অঞ্চলের উপ-পরিচালক টিএম জাকির হোসেন।
যশোর সংবাদদাতা জানান, জেলায় আজ বৃহস্পতিবার বছরের প্রথম দিন বই উৎসবে ১৬ লাখ ৮৯ হাজার ৩২৯ প্রাথমিক ও ৪১ লাখ ৪৪ হাজার ১৪৪ টি মাধ্যমিকের বই বিতরণ করা হয়েছে।
সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসক ডক্টর হুমায়ূন কবীর জিলা স্কুলে এ বই উৎসবের সূচনা করেন। এরপর তিনি আরো কয়েকটি স্কুলের বই উৎসবে অংশ নেন। এছাড়া বিভিন্ন উপজেলায় ইউএনওরা বই উৎসবের উদ্বোধন করেছেন।
নতুন বছর নতুন ক্লাসের নতুন বইয়ের ঘ্রাণে শিক্ষার্থীরা উচ্ছ্বসিত বলে তারা জানায়।
বাসস চট্টগ্রাম অফিস জানায়, আনন্দমুখর পরিবেশে আজ বৃহস্পতিবার জেলায় বই উৎসব পালিত হয়েছে। জেলার প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ইংরেজি নতুন বছরের প্রথম দিন বিনামূল্যে নতুন পাঠ্যবই শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেয়া হয়।
চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ আজ সকালে নগরের মিউনিসিপ্যাল মডেল গভর্নমেন্ট প্রাইমারি স্কুলে শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দিয়ে বই উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।
এসময় চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ও সহকারী অফিসার মোহাম্মদ জহির উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।
মুন্সীগঞ্জ সংবাদদাতা জানান, জেলার ছয়টি উপজেলায় বৃহস্পতিবার বিনামূল্যে প্রায় ২৬ লাখ পাঠ্য বই বিতরণ করা হয়েছে।
প্রথম শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত সকল শিক্ষার্থীরা এই নতুন বই পেয়ে বেজায় খুশি বলে অভিভাবকরা জানিয়েছেন।
শহরের পুরাতন কাচারী মুন্সীগঞ্জ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে দুপুরে জেলা পর্যায়ে আনুষ্ঠানিক বই বিতরণ উদ্বোধন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস এমপি। জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল হাসান বাদলের সভাপতিত্বে মুক্তিযোদ্ধা, জনপ্রতিনিধি, প্রশাসনিক কর্মকর্তা, শিক্ষা কর্মকর্তা, শিক্ষক, সাংবাদিক ও শিক্ষার্থীরা বক্তব্য রাখেন।
পরে শহরের ড. ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদ রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মেজর মো. রেজাউল করিমের সভাপতিত্বে এবং এভিজেএম সরকারি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক রেবেকা সুলতানার সভাপতিত্বে অতিথিবৃন্দ আনুষ্ঠানিকভাবে শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেন।
জেলা সদর ছাড়াও টঙ্গিবাড়ী, গজারিয়া, শ্রীনগর, লৌহজং ও সিরাজদিখান উপজেলার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং মাদ্রাসাগুলোতে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে পাঠ্য বই বিতরণ করা হয়।
ভোলা সংবাদদাতা জানান, নতুন বছরের প্রথম দিন বৃহ¯পতিবার সকাল থেকেই জেলার সব স্কুলে একযোগে বিনামূল্যে পাঠ্য বিতরণ করা হয়েছে।
সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানায়, এ বছর জেলার ৩লাখ ৩২ হাজার প্রথমিক শিক্ষার্থীদের মাঝে ১৬ লাখ ৮০হাজার ৭৭৫ টি ও মাধ্যমিকের শিক্ষার্থীদের মাঝে ১৩লাখ ৮৬হাজার ২২০টি বই বিনামূল্যে বিতরণ করার কথা রয়েছে।
জেলা প্রশাসক মো. সেলিম রেজা বিভিন্ন স্কুলে বই বিতরণ উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন । তিনি সকাল থেকে জেলা সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে, জেলা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে, চরজংলা সরকারি প্রাথমিক মডেল স্কুলে, এ রব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বই ও নলিনীদাস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বই বিতরণ কর্মসূচিতে যোগ দেন।
বরগুনা সংবাদদাতা জানান, সারাদেশের মতো বরগুনায়ও আনুষ্ঠানিকভাবে বই বিতরণের উদ্বোধন করা হয়েছে। বরগুনা জেলার প্রায় ৩ লাখ শিক্ষার্থীর মাঝে ২২ লাখ ৩৬ হাজার ৫শ বই বিতরণ করা হয়েছে।
বরগুনা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, বরগুনা জিলা স্কুল ও বরগুনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বই বিতরণ উৎসবের উদ্বোধন করেন, বরগুনার জেলা প্রশাসক মীর জহুরুল ইসলাম।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বরগুনার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর আলম, জেলা শিক্ষা অফিসার সুকুমার হালদার, প্রমুখ বক্তৃতা করেন।
দিনাজপুর সংবাদদাতা জানান, উৎসবমূখর পরিবেশে ২০১৫ সালের প্রথম দিনে আজ বৃহস্পতিবার জেলার ১৩টি উপজেলায় মাধ্যমিক, প্রাইমারী, দাখিল, এবতেদায়ী এবং এসএসসি ভোকেশনাল শ্রেণীর ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে দেয়া হয় রঙ্গিন নতুন পাঠ্যপুস্তক।
জানুয়ারী বই উৎসবে দিনাজপুর জেলায় ৬৬৯টি মাধ্যমিক স্কুলে ৩ লক্ষ ১৮ হাজার, ১ হাজার ৮৭৬টি সরকারী প্রাথমিক ও ২ শতাধিক বেসরকারী স্কুলে ১৮ লক্ষ ৩৯ হাজার ৬৫৭, ৩০১টি দাখিল মাদ্রাসায় ৪ লাখ ৬৭ হাজার ১৫০, ১৫০টি এবতেদায়ী মাদ্রাসায় ৩ লাখ ১৫ হাজার ৪৯৩টি নতুন বই ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে তুলে দেয়া হয়।
জেলা প্রশাসক আহমদ শামীম আল রাজীকে সঙ্গে নিয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ একরামুল হক শহরের নিউটাউন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও সদর উপজেলার উলিপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় নতুন বই আনুষ্ঠানিকভাবে বিতরণ করেন।
জেলা পরিষদ প্রশাসক আজিজুল ইমাম চৌধুরী, পুলিশ সুপার মোঃ রুহুল আমিন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ ফরিদুল ইসলামসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা জেলার বিভিন্ন স্কুল ও মাদ্রাসায় নতুন বই বিতরণ করেন।
ঠাকুরগাঁও সংবাদদাতা জানান, ঠাকুরগাঁও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বৃহষ্পতিবার ৩০ বিজিবি ব্যাটালিয়ন-এর পরিচালক লেঃ কর্ণেল তুষার বিন ইউনুস ১ম শ্রেণী থেকে ৭ম শ্রেণী পর্যন্ত ৫০০ জন ছাত্র-ছাত্রীর মাঝে নতুন বই বিতরণ করেছেন ।
শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ২০১৫ সালে দেশের সকল প্রাথমিক, ইবতেদায়ী, দাখিল ও দাখিল ভোকেশনাল, মাধ্যমিক (ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণী) এবং এসএসসি ভোকেশনাল শ্রেণীর ছাত্র ও ছাত্রীর মধ্যে বিনামূল্যে বই বিতরণ করা হয়েছে। এ বছর ৪ কোটি ৪৪ লাখ ৫২ হাজার ৩৭৪ জন ছাত্র ও ছাত্রীর মধ্যে ৩২ কোটি ৬৩ লাখ ৪৭ হাজার ৯২৩টি বই বিতরণ করা হবে।
বই বিতরণে বিশেষত্বের মধ্যে রয়েছেÑ এবারই প্রথমবারের মতো নবম শ্রেণীতে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি চালু, প্রথমবারের মতো অষ্টম শ্রেণীতে কর্ম ও জীবনমুখী এবং নবম শ্রেণীতে ক্যারিয়ার শিক্ষা চালু, জাতীয় শিক্ষা নীতির আলোকে জাতীয় শিক্ষাক্রমের সাথে মাদরাসা স্তরের বইয়ের সঙ্গতি এবং প্রথমবারের মতো ইবতেদায়ী স্তরের সকল বই চার রঙে মূদ্রণ।
উল্লেখ্য, ২০১০ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত সরকার মোট বই বিতরণ করেছে ১৫৫ কোটি ৮৩ লাখ ৫৬ হাজার ১২৩টি।
এ ছাড়া সাতক্ষীরা, জয়পুরহাট, নওগাঁ, নড়াইল, মাদারীপুর, চুয়াডাঙ্গা, বাগেরহাট, হবিগঞ্জ, বগুড়া, গাইবান্ধা ও খাগড়াছড়িতে আনন্দ ও উৎসবমুখর পরিবেশে বই উৎসব পালিত হয়। প্রত্যেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেয়া হয়। শিক্ষার্থীরা আনন্দ ও উল্লাসে মেতে ওঠে।