সাবেক ওসি (পরিদর্শক) মোয়াজ্জেম হোসেন
পরিচিতিঃ মুখে দাঁড়ি, হাফ হাতা গেঞ্জি, চোখে সানগ্লাস লাগানো ব্যাক্তিই ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি (পরিদর্শক) মোয়াজ্জেম হোসেন, ফোকাস বাংলা

আদালতে হাজির করা হচ্ছে সাবেক ওসিকে

মাদরাসাছাত্রী নুসরাত হত্যার পর পালিয়ে বেড়ানো ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি (পরিদর্শক) মোয়াজ্জেম হোসেনকে গ্রেফতারের পর আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সোমবার শাহবাগ থানা থেকে প্রিজনভ্যান করে তাকে মহানগর দায়রা জজ আদালতে নিয়ে যায় পুলিশ।

তাকে বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হবে বলে জানিয়েছেন শাহবাগ থানার পরিদর্শক অপারেশনস মাহবুবুর রহমান।

শাহবাগ থানার এক এসআই বলেছেন, ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের পরনে রয়েছে হাফ হাতা গেঞ্জি, চোখে সানগ্লাস, মুখে দাঁড়ি। অবশ্য গ্রেফতারের সময় তিনি শার্ট পরিহিত ছিলেন।

এর আগে সকাল সাড়ে নয়টার দিকে মোয়াজ্জেমকে সোনাগাজী পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে শাহবাগ থানা পুলিশ। রোববার বিকালে ওসি মোয়াজ্জেমকে ঢাকার হাইকোর্ট এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। সাইবার ট্রাইব্যুনালের পরোয়ানা জারির ২০ দিন পর তাকে গ্রেফতার করা হলো।

ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি গত মার্চ মাসে অধ্যক্ষ সিরাজ্জুদদৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ করলে ওসি মোয়াজ্জেম তাকে থানায় ডেকে জবানবন্দি নিয়েছিলেন।

তার কয়েক দিনের মাথায় নুসরাতের গায়ে অগ্নিসংযোগ করে হত্যা করা হয়। এরপর সারাদেশে আলোড়ন শুরু হয়। নুসরাতের মৃত্যুর পর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

ওই মামলায় অভিযোগ করা হয়, মোয়াজ্জেম হোসেন বেআইনিভাবে মোবাইল ফোনে নুসরাতের জবানবন্দির ভিডিও করেছেন এবং তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দিয়েছেন।