ব্রেকিং নিউজ

সকাল ১০:২৫ ঢাকা, রবিবার  ২২শে জুলাই ২০১৮ ইং

বেগম খালেদা জিয়া
ফাইল ফটো

আদালতে খালেদা জিয়া, কাঁদলেন-কাঁদালেনও

আজ আদালতে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় হাজিরা দিয়ে অসমাপ্ত বক্তব্য প্রদানকালে কাঁদলেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। খালেদা জিয়া আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। ছেলে জন্য ডুকরে কেঁদেছেন। তার কান্নায় উপস্থিত আইনজীবীদেরও চোখ ভিজে যায়, কেউ কেউ কান্নাও করেছেন।

বৃহস্পতিবার পুরান ঢাকার বকশীবাজার আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত অস্থায়ী ৫ নম্বর বিশেষ জজ আদালতে তিনি এ অসমাপ্ত বক্তব্য দেন। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী তিনি লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।

বক্তব্যের এক পর্যায়ে তিনি বলেন, ‘মাননীয় আদালত আপনি নিশ্চয়ই দেখতে পাচ্ছেন, সম্প্রতি বছরগুলোতে আমরা বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা মামলা দায়ের করা হচ্ছে। জারি করা হচ্ছে গ্রেফতারি পরোয়ানা। চারদশকের স্মৃতি বিজড়িত বসত বাড়ি থেকে আমাকে উচ্ছেদ করা হয়েছে। আমাকে বাসা ও রাজনৈতিক কার্যালয়ে বালুর ট্রাক দিয়ে কয়েক দফায় অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমি অফিসে অবরুদ্ধ থাকা অবস্থায় বিদ্যুৎ, পানি, টেলিফোন, ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়। আমি অবরুদ্ধ অবস্থাতে বিদেশে চিকিৎসাধীন ছোট ছেলের মৃত্যুর সংবাদ পাই।

এরপরই খালেদা জিয়া আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। কান্নায় কন্ঠ জড়িয়ে যায়। ছেলের জন্য কান্নায় চোখ ভিজে যায়। কিন্তু পরক্ষণেই আবার নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করে বলেন, ‘আমি সেইদিন (কোকোর মৃত্যুর দিন) এবং আমার সঙ্গে যারা অফিসে অবরুদ্ধ ছিলেন তাদের বিরুদ্ধে সম্পূর্ণ বানোয়াট একটি মামলা দায়ের করা হয়। অভিযোগ করা হয় রাস্তায় গাড়ি পুরানো এবং বিস্ফোরক দিয়ে মানুষ হত্যার। অফিসে অবরুদ্ধ থাকাকালীন অবস্থায় নাকি আমরা এসব করেছি। এটা কি কোনো সভ্য মানুষিকতার আচরণ হতে পারে?’

আজ খালেদা জিয়া বেলা ১১টা ৫৮ মিনিটে আদালতে হাজির হন।