Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ১০:১৭ ঢাকা, মঙ্গলবার  ১৩ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

“আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে হরতালকারীদের রাজনীতি করার অধিকার থাকতে পারে না”

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ এমপি বলেছেন, যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষায় আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে হরতাল আহবান কারীদের দেশে রাজনীতি করার কোন অধিকার থাকতে পারে না। যুদ্ধাপরাধী দল হিসেবে জামায়াতের রাজনীতি নিষিদ্ধ করার জন্য আদালতের কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহন করা দেশের মানুষের প্রাণের দাবী।
তিনি আজ সকালে নগরীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে রমনা থানা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে মুক্তিযুদ্ধকালে যুদ্ধাপরাধের দায়ে সাকা-মুজাহীদের ফাঁসির রায় কার্যকর হওয়ায় আয়োজিত আনন্দ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
রমনা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল বাশারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন খাদ্যমন্ত্রী এবং ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি।
সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সহসম্পাদক অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম সাজু, এডভোকেট বলরাম পোদ্দার, যুক্তরাষ্ট আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা।
ড. হাছান মাহমুদ বলেন, সাকা-মোজাহীদের ফাঁসির রায় কার্যকর হওয়ায় আগামীকাল জামায়াত হরতাল আহবান করেছে। যা আদালত অবমাননা ছাড়া আর কিছু নয়।
পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. হাছান বলেন, সাকা-মুজাহীদের ফাঁসির রায় কার্যকরের মধ্য দিয়ে জাতি কিছুটা হলেও কলঙ্কমুক্ত হয়েছে।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ়চেতা মনোভাবের কারনেই দেশে যুদ্ধাপরাধের বিচার করা সম্ভব হয়েছে। এতে দেশের বিচারহীনতার যে সংস্কৃতি চালু ছিল তা বন্ধ হবে।
এডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহন করেন। জামায়াত নিষিদ্ধের ব্যাপারেও সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেবেন।
তিনি বলেন, সাকা-মুজাহীদের ফাঁসির রায় কার্যকর হয়েছে। মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির রায়ের বিরুদ্ধে আপীল শুনানী চলছে। কোন যুদ্ধাপরাধী বিচারের হাত থেকে রেহাই পাবে না।
আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, দেশের সরকার যেমন মুক্তিযুদ্ধর স্বপক্ষের শক্তি হবে তেমনি বিরোধী দলও স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি হবে। স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি দেশে রাজনীতি করতে পারবে না।

FOLLOW US: