শীর্ষ মিডিয়া

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১০:৩৮ ঢাকা, সোমবার  ১৭ই ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

আজ বৃক্ষ মেলা ও পরিবেশ মেলার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

জাতীয় বৃক্ষরোপণ অভিযান ও বৃক্ষ মেলা ২০১৫ এবং বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে ৩ দিনব্যাপী পরিবেশ মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হবে আজ রোববার।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকাল সাড়ে ১০টায় কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে বৃক্ষরোপণ অভিযান ও বৃক্ষ মেলার এবং পরে বাণিজ্য মেলার মাঠে আয়োজিত পরিবেশ মেলার উদ্বোধন করবেন।
শনিবার হোটেল সোনারগাঁওয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বন ও পরিবেশ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এ কথা বলেন।
সংবাদ সম্মেলনে আরো বক্তৃতা করেন ভারপ্রাপ্ত বন ও পরিবেশ সচিব ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো: রইছউল আলম মন্ডল ও পরিচালক মো. তৌফিকুল আরিফ।
মন্ত্রী বলেন, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ‘জাতীয় পরিবেশ পদক ২০১৫’ প্রদান করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘পরিবেশ সংরক্ষণ ও দূষণ নিয়ন্ত্রণ’ ক্যাটাগরিতে পদকপ্রাপ্ত দু’জন, এ্যাডভোকেট মনজিল মোরশেদ (ব্যক্তিগত) ও আব্দুল মুকিত মজুমদারের (ব্যক্তিগত) হাতে পদক তুলে দেবেন।
তিনি বলেন, বৃক্ষরোপণে গণমানুষকে উৎসাহিত করতে সরকার ‘বৃক্ষরোপণে প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় পুরস্কার’ ১৯৯৩ সাল থেকে চালু করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১০ ক্যাটাগরিতে (প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অধিকারী) বিজয়ী ৩০ ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে আজ সে পুরস্কারও প্রদান করবেন।
দেশের পার্বত্য জেলাগুলোর কতিপয় অঞ্চল ও বঙ্গোপসাগর বিধৌত ১২টি বিস্তির্ণ উপকূলীয় এলাকা ব্যতীত পুরো দেশই সমভূমি উল্লেখ করে বন ও পরিবেশ মন্ত্রী বলেন, এ কারণে এ বছর আমরা স্লোগান ঠিক করেছি ‘পাহাড়, উপকূল, সমতলে, গাছ লাগাই সবাই মিলে’।
একটি দেশের মোট ভূমির ২৫ ভাগ বনভূমি থাকা আব্যশক উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, বর্তমানে আমাদের দেশের মোট ভূমির ১৩ ভাগ বনভূমি। শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় আসার আগে বনায়নের এ পরিমাণ ছিল মাত্র ১০ ভাগ।
মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার ২০২১ সালের মধ্যে দেশের ১৫ ভাগ বনভূমি কাভারেজ করার জন্য ইতোমধ্যে ২টি মধ্যম মেয়াদী উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণ করে বন বিভাগের মাধ্যমে কাজ করে যাচ্ছে।
তিনি বলেন, আমাদের মন্ত্রণালয় এছাড়াও বনজীবিদের বিকল্প আয়ের সুযোগ তৈরি করে বন ব্যবস্থাপনা ও জীববৈচিত্র সংরক্ষণে কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। বনাঞ্চলকে ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম টেকনোলজী প্রযুক্তির মাধ্যমে টেকসই বন ব্যবস্থাপনা হিসাবে গড়ে তোলা হচ্ছে। অর্থনীতিতে বন ইকোসিস্টেমের সেবার অবদান নিরুপণের কার্যক্রম বাস্তবায়ন চলছে।
এ বছর সারাদেশে ৪ কোটি গাছ লাগানোর পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী মঞ্জু বলেন, দেশের দক্ষিণাঞ্চলে গাছপালা খুবই কম। এ কারণে সেখানে সুপেয় পানিরও বেশ অভাব। ওই অঞ্চলের মানুষ তাই দিন দিন উজানের দিকে উঠে আসছে।
তিনি বলেন, তা রোধ করতে এবং অবস্থার উন্নতি ঘটাতে সেখানে ব্যাপক হারে গাছ লাগানোর পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত দিয়েই এবার দেশের দক্ষিণাঞ্চলে গাছ লাগানোর উদ্বোধন করা হবে।