Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১২:৩১ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ১৫ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

আইসিটি শিল্প জোরদারে বাংলাদেশ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে

Like & Share করে অন্যকে জানার সুযোগ দিতে পারেন। দ্রুত সংবাদ পেতে sheershamedia.com এর Page এ  Like দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকতে পারেন।

প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় গত ছয় বছরে আইসিটি খাতের অর্জনকে সন্তোষজনক উল্লেখ করে বলেন, আইসিটি শিল্পের উন্নয়নে বাংলাদেশ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে।
আজ এখানে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৫ মন্ত্রিপর্যায়ের সম্মেলনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে জয় বলেন, ২০২১ সাল নাগাদ ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে বর্তমান সরকার রূপকল্প ২০২১ ঘোষণা করায় গত কয়েক বছরে আইসিটি’র বিভিন্ন ক্ষেত্রে আমরা উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জন করেছি। অর্থমন্ত্রী এ এম এ মুহিত, আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, আন্তর্জাতিক টেলিযোগাযোগ ইউনিয়নের (আইটিইউ) মহাসচিব হুলিন জাও এবং ভুটানের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রী দিনা নাথদুংগেল বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান।
প্রতিবেশী বিভিন্ন দেশের মন্ত্রী, কূটনীতিক, বিভিন্ন আইটি কোম্পানির প্রতিনিধি ব্যবসায়ী নেতা ও আইটি বিশেষজ্ঞরা প্যানেল আলোচনায় অংশ নেন।
আইটি বিশেষজ্ঞ জয় তাঁর প্রবন্ধে বলেন, ২০০৮ সালে মোবাইল ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল ২ কোটি, ২০১৪ সালে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২ কোটি। এতে মোবাইল ও ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০০৮ সালে মাত্র ০.৪ শতাংশ লোক ইন্টারনেট ব্যবহার করতো, বর্তমানে এ সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৭ শতাংশ।
২০০৮ ও ২০১৪ সালের মধ্যে এই সংখ্যাগত তথ্যের তুলনা করে জয় বলেন, আইসিটি’র অন্যান্য ক্ষেত্রেও একইভাবে সাফল্য অর্জিত হয়েছে।
জয় বলেন, অর্থনৈতিক এবং প্রযুক্তিগতভাবে অগ্রসর বাংলাদেশ নির্মাণের লক্ষ্যে সাধারণ মানুষের কাছে ইন্টারনেট সুবিধা নিশ্চিত করতে বর্তমান সরকার ব্যান্ডউইথ’র মূল্য উল্লেখযোগ্য পরিমাণ কমিয়েছে।
‘আইসিটি শিল্পের উন্নয়নে আইসিটি অবকাঠামো ও যোগাযোগ সম্প্রসারণের ওপর আমরা গুরুত্ব দিয়েছি’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, আইসিটি শিল্পের সম্প্রসারণের অংশ হিসেবে দেশের বিভিন্ন এলাকায় সরকার ১২টি হাইটেক পার্ক স্থাপনের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে।
আইসিটি উপদেষ্টা বলেন, ইন্ডাস্ট্রিয়াল বেইজ, ইন্টারনেট রোড, সায়েন্স প্লাজা ও সংশ্লিষ্ট বিভাগ সমন্বয়ে গাজীপুরের কালিয়াকৈরে ২৩১ দশমিক ৬৮৫ একর জমির ওপর হাইটেক পার্ক নির্মিত হচ্ছে।