Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৬:০৩ ঢাকা, বুধবার  ২১শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

“অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতেই ব্লগার হত্যাসহ বিভিন্ন অপতৎপরতা চালাচ্ছে”

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, স্বাধীনতা বিরোধী ও জঙ্গী গোষ্ঠী দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতেই ব্লগার হত্যাসহ বিভিন্ন অপতৎপরতা চালাচ্ছে।
তিনি বলেন, এই সকল জঙ্গী গোষ্ঠীকে মদদ দিচ্ছে বিএনপি-জামায়াত। কিন্তু সরকার জঙ্গী দমনের ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। ইতোমধ্যেই ব্লগার হত্যার সাথে জড়িত কয়েক জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জঙ্গীদের দেয়া তথ্য অনুয়াযী অর্থসহযোগিতার জন্য তিন আইনজীবীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।
মোহাম্মদ নাসিম আজ শনিবার ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লীতে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী ‘প্রতিরোধযোগ্য শিশু ও মাতৃমৃত্যু রোধে বৈশ্বিক আহ্বান-২০১৫’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে যোগ দিতে এখন দিল্লীতে অবস্থান করছেন।
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য বলেন, বিএনপি জামায়াত রাজনীতির সাথে যুক্ত এই আইনজীবীরা স্বীকার করেছেন তারা এই ব্লগার হত্যাকারী জঙ্গীদের আর্থিক যোগান দিতেন।
তিনি বলেন, দেশে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু হওয়াতে তরুণ প্রজন্ম উৎসাহিত এবং আনন্দিত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার এই ঘাতকদের বিচার করে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করতে অঙ্গীকারাবদ্ধ। কোন অপতৎপরতাই এই বিচার বন্ধ করতে পারবে না ।
নয়াদিল্লী সফর প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এই সফর অত্যন্ত সফল হয়েছে। উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভাষণ উপস্থিত সবাইকে দারুনভাবে উজ্জীবিত করেছে।
তিনি বলেন, সম্মেলনের উদ্বোধনের আগে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সাথে তার দেখা এবং কুশল বিনিময় করেছেন। তিনি এ সময় সফল বাংলাদেশে সফরের কথা উল্লেখ করেছেন।
এসময়ে মোহাম্মদ নাসিম স্থল সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়নের জন্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।
শুক্রবার ভারতের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জে পি নাড্ডার সাথে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ভারত বাংলাদেশকে যে ২ বিলিয়ন ডলার দিয়েছে, তা থেকে স্বাস্থ্যখাতের বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়নে সহায়তা প্রদানের অনুরোধ জানানো হয়েছে। একই সাথে ৪ টি নতুন মেডিকেল কলেজ এবং একটি ক্যান্সার ও বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট নির্মাণ ও যন্ত্রপাতি সরবরাহের কথা বলা হয়েছে ।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ মাতৃ ও শিশুমৃত্যু হার রোধ এবং কমিউনিটি হেলথ ক্লিনিকের মাধ্যমে স্বাস্থ্য সেবা প্রদানে ভারতের চেয়ে এগিয়ে। আমরা এ ব্যাপারে ভারতকে সহায়তা করতে পারি।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আগামী নভেম্বরে ঢাকায় এই বিষয়ে ১২৪ দেশের আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সেই সম্মেলনে ভারতের স্বাস্থ্যমন্ত্রী বাংলাদেশে যাবেন তখন বিষয়গুলো চূড়ান্ত করা হবে।
ভারত বাংলাদেশের থেকে হোমিওপ্যাথি, আযুর্বেদ এবং ইউনানি স্বাস্থ্য সেবায় অনেক এগিয়ে আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে তারা আমদেরকে সহযোগিতা প্রদান করবে।